ব্রিস্টল: চারবছর আগে বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে হারের স্মৃতি এখনও টাটকা। ক্রিকেটে তখনও ‘দুধের শিশু’ আফগানিস্তানকে পারথে সেবার ২৭৫ রানে পরাস্ত করেছিল অস্ট্রেলিয়া। প্রথমে ব্যাট করে ওয়ার্নারের ১৭৮ রানে ভর করে এশিয়ার দেশটির বিরুদ্ধে ৪১৭ রানের পাহাড়সম রান তুলেছিল মাইকেল ক্লার্কের দল।

তবে সময় বদলেছে। গত চারবছরে বিশ্ব ক্রিকেটের মানচিত্রে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করেছে কাবুলিওয়ালার দেশ। তাই শনিবার বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে আফগানিস্তানের এক অন্য লড়াই দেখবেন ক্রিকেট অনুরাগীরা, জানাচ্ছেন নয়া অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব। ভয়ডরহীন ক্রিকেট তো নয়ই, বরং দেশবাসীর ন্যূনতম প্রত্যাশাকে সঙ্গী করে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে চমক দেখাতে প্রস্তুত আফগানরা, আত্মবিশ্বাসী অধিনায়ক।

আরও পড়ুন: আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ওয়ার্নারকে পেতে সমস্যা নেই অস্ট্রেলিয়ার

গত চার বছরে সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে আফগানদের নজরকাড়া উত্থান বিশ্বকাপে প্রত্যয়ী করে তুলেছে দেশের ক্রিকেট অনুরাগীদের। এরইমধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাস কয়েকগুণ বাড়িয়ে নিয়েছে রশিদরা। শুক্রবার ম্যাচের আগেরদিন সাংবাদিক সম্মেলনে অধিনায়ক নাইব জানান, ‘চারবছর আগের তুলনায় অনেক বদলে গিয়েছে দল। গত দু’বছরে আমরা প্রত্যেকটি বিভাগে উন্নতি করেছি। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলতে আমরা উদগ্রীব এবং আগামীকালের ম্যাচেই সম্পূর্ণ ফোকাস রয়েছে আমাদের। বিশ্বকাপের মহামঞ্চে আমরা নিজেদের সেরাটা দিতে মুখিয়ে রয়েছি।’

আরও পড়ুন: তামিমের চোটে বাংলাদেশ শিবিরে হঠাতই উদ্বেগ

প্রথম ম্যাচের প্রাক্কালে দলের বোলিং ইউনিট নিয়েও যথেষ্ট আশাবাদী শোনায় আফগান অধিনায়ককে। রশিদ খান, মুজিব উর রহমান এবং মহম্মদ নবি। দলের স্পিন ত্রয়ীর প্রত্যেকেই আইসিসি র‍্যাংকিংয়ের প্রথমসারিতেই রয়েছেন। তাই শক্তিশালী বোলিং ইউনিট হিসেবেই যে তাঁর দল বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবেন, তা মনে করিয়ে দিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে নাইব জানান, ‘গত ১২ মাস ধরে আমরা নিজেদের পুরোদমে প্রস্তুত করেছি। ক্রিকেটাররা প্রত্যেকেই আত্মবিশ্বাসী।’

আরও পড়ুন: চাপ কাটাতে পেইন্টবলে মজলেন কোহলি-ধোনিরা

একইসঙ্গে দলের স্পিন অ্যাটাক নিয়ে বলতে গিয়ে নবনির্বাচিত অধিনায়ক জানান, ‘অস্ত্র হিসেবে আমাদের হাতে দুর্দান্ত স্পিন আক্রমণ রয়েছে। তবে উইকেটের চরিত্রের উপরেই পুরো বিষয়টা নির্ভর করবে।’ একইসঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে উজ্জীবিত আফগানরা অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যে কোনও রকম ফল করতে প্রস্তুত, জানিয়ে দেন নাইব।