কাবুলঃ  তালিবানদের বিরুদ্ধে অস্ত্রবিরতি শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি। শুধু অস্ত্র-বিরতি থেকে সরে আসা নয়। ইতিমধ্যে তালিবানদের শান্তি আলোচনাতে বসার কথাও জানিয়েছেন আফগান-প্রেসিডেন্ট। গনি বলেছেন, “তারা কি হত্যাকাণ্ড চালিয়ে যাবে না শান্তি প্রক্রিয়ায় যোগ দেবে। তা এখন তালিবানকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।”

চলতি মাসে রমজান ও ইদ উপলক্ষে আফগানিস্তান সরকারের একতরফা অস্ত্রবিরতি ঘোষণার বিপরীতে শুধু ইদের ছুটির তিন দিন অস্ত্রবিরতিতে সম্মতি দিয়েছিল তালিবান। ১৫ থেকে ১৭ জুন পর্যন্ত দুপক্ষের ওই অস্ত্রবিরতির সময় তালিবানরা রাজধানী কাবুলসহ আফগানিস্তানজুড়ে শহরগুলোতে এসে সেনা, পুলিশ ও সাধারণ লোকদের সঙ্গে ইদের আনন্দ ভাগাভাগি করেছিলেন।

দুপক্ষের এই অস্ত্রবিরতি শেষ হওয়ার পর আরও ১০ দিন তালিবানের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক হামলা বন্ধ রাখতে সরকারি বাহিনীগুলোকে নির্দেশ দিয়েছিলেন গনি। কিন্তু এর মধ্যে আফগানিস্তানে একের পর এক হামলা চালায় তালিবান জঙ্গিরা। একের পর এক বড় হামলা সত্বেও ইদের পর থেকে এতদিন আফগান নিরাপত্তা বাহিনী মূলত আত্মরক্ষামূলক অবস্থানেই ছিল।

এবার প্রেসিডেন্টের ঘোষণার পর তারা তালেবানের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান শুরু করতে পারবে। পাশাপাশি তারা জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধেও অভিযান শুরু করবে, যদিও আইএসের সঙ্গে কোনো অস্ত্রবিরতির ঘোষণা দেয়নি আফগানিস্তান সরকার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।