কিম্বারলি: বিশ্বকাপের শুরুতেই জায়ান্ট কিলার হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করল আফগানিস্তান৷ একই সঙ্গে টুর্নামেন্টের বাকি দলগুলিকে প্রচ্ছন্ন হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখল এশিয়ার উদীয়মান এই ক্রিকেট জাতি৷ শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে বোধন হয় ১৩তম আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের৷ উদ্বোধনী ম্যাচেই আয়োজক দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিধ্বস্ত করল আফগানিস্তানের যুব দল৷

কিম্বারলির ডায়মন্ড ওভালে টস জিতে দক্ষিণ আফ্রিকার যুব দল প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়৷ যদিও তাদের সিদ্ধান্ত কতটা সঠিক তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায় কিছুক্ষণের মধ্যেই৷ শুরু থেকেই ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারাতে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকা ২৯.১ ওভারে অল-আউট হয়ে যায় মাত্র ১২৯ রানে৷ জবাবে ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তান ২৫ ওভারে ৩ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৩০ রান তুলে নেয়৷ অর্থাৎ, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে আফগানিস্তান ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় তুলে নেয়৷

আফগানিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন অধিনায়ক ব্রিস পারসনস৷ ৯ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে জেরাল্ড কোয়েতজি ২৩ বলে ৩৮ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন৷ তা না-হলে আফগানিস্তান একশো রানের গণ্ডি টপকাতে পারত কিনা সন্দেহ৷ এছাড়া প্রোটিয়া ইনিংসে দু’অঙ্কের রান বলতে লিউক বিউফোর্টের ২৫৷ বাকিরা কেউি বলার মতো রান করতে পারেননি৷

আফগানদের হয়ে শফিকুল্লাহ গাফারি ৯.১ ওভারে মাত্র ১৫ রানের বিনিময়ে ৬টি উইকেট তুলে নেন৷ এছাড়া ফজল হক ও নুর আহমেদ ২টি উইকেট দখল করেন৷ আফগানিস্তানের হয়ে ইমরান সর্বোচ্চ ৫৭ রান করেন৷ ৪৮ বলের ইনিংসে তিনি ১০টি বাউন্ডারি মারেন৷ ওপেনার ইব্রাহিম জাদরান ৮টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৭২ বেল ৫২ রানের লড়াকু ইনিংস উপহার দেন৷ ক্যাপ্টেন ফারহান জাখিল ১১ রান করে আউট হন৷ ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন শফিকুল্লাহ গাফারি৷