কিম্বারলি: বিশ্বকাপের শুরুতেই জায়ান্ট কিলার হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করল আফগানিস্তান৷ একই সঙ্গে টুর্নামেন্টের বাকি দলগুলিকে প্রচ্ছন্ন হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখল এশিয়ার উদীয়মান এই ক্রিকেট জাতি৷ শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে বোধন হয় ১৩তম আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের৷ উদ্বোধনী ম্যাচেই আয়োজক দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিধ্বস্ত করল আফগানিস্তানের যুব দল৷

কিম্বারলির ডায়মন্ড ওভালে টস জিতে দক্ষিণ আফ্রিকার যুব দল প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়৷ যদিও তাদের সিদ্ধান্ত কতটা সঠিক তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায় কিছুক্ষণের মধ্যেই৷ শুরু থেকেই ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারাতে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকা ২৯.১ ওভারে অল-আউট হয়ে যায় মাত্র ১২৯ রানে৷ জবাবে ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তান ২৫ ওভারে ৩ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৩০ রান তুলে নেয়৷ অর্থাৎ, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে আফগানিস্তান ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় তুলে নেয়৷

আফগানিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন অধিনায়ক ব্রিস পারসনস৷ ৯ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে জেরাল্ড কোয়েতজি ২৩ বলে ৩৮ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন৷ তা না-হলে আফগানিস্তান একশো রানের গণ্ডি টপকাতে পারত কিনা সন্দেহ৷ এছাড়া প্রোটিয়া ইনিংসে দু’অঙ্কের রান বলতে লিউক বিউফোর্টের ২৫৷ বাকিরা কেউি বলার মতো রান করতে পারেননি৷

আফগানদের হয়ে শফিকুল্লাহ গাফারি ৯.১ ওভারে মাত্র ১৫ রানের বিনিময়ে ৬টি উইকেট তুলে নেন৷ এছাড়া ফজল হক ও নুর আহমেদ ২টি উইকেট দখল করেন৷ আফগানিস্তানের হয়ে ইমরান সর্বোচ্চ ৫৭ রান করেন৷ ৪৮ বলের ইনিংসে তিনি ১০টি বাউন্ডারি মারেন৷ ওপেনার ইব্রাহিম জাদরান ৮টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৭২ বেল ৫২ রানের লড়াকু ইনিংস উপহার দেন৷ ক্যাপ্টেন ফারহান জাখিল ১১ রান করে আউট হন৷ ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন শফিকুল্লাহ গাফারি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I