ফাইল ছবি৷

লখনউ:  ৫০হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে, বিজেপির বর্ষীয়াণ নেতা লালকৃষ্ণ আদবাণী, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী মুরলী মনোহর যোশী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতীসহ ১২জন অভিযুক্তের জামিন মঞ্জুর করল সিবিআই-এর বিশেষ আদালত৷ বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ষড়যন্ত্র, সাম্প্রদায়িক সমস্যার সৃষ্টি, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত, এমনই বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে৷ একইসঙ্গে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় লালকৃষ্ণ আদবানী, মুরলীমনোহর জোশী ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি ষড়যন্ত্রের অভিযোগে চার্জ গঠন করেছে লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালত।  প্রশ্ন উঠেছে এঁদের ভূমিকা নিয়ে। চার্জ গঠিত হয়েছে, উগ্র হিন্দুত্ববাদী নেত্রী স্বাধ্বী ঋতম্ভরা, বিজেপি সাংসদ বিনয় কাটিয়ার, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা বিষ্ণু হরি ডালমিয়ার বিরুদ্ধেও  অভিযোগ গঠিত হয়েছে

গত ২৫মে অভিযুক্তদের আদালতে হাজিরার নির্দেশ দেন সিবিআই-এর বিশেষ আদালতের বিচারক এস কে যাদব৷ এ প্রসঙ্গে উমা ভারতী জানান, কোনওরকম ষড়যন্ত্র নয়, এটা একটা আন্দোলন ছিল৷ আদালতকে তিনি সম্মান করেন বলেই উপস্থিত হয়েছেন৷ বিজেপি নেতা বিনয় কাতিয়ার জানান, সেসময় লাখ লাখ মানুষ সেখানে উপস্থিত ছিল, তাই তাকে ষড়যন্ত্র বলা যায় না৷

আরও পড়ুন: আমার নির্দেশেই ধ্বংস হয় বাবরি মসজিদ: রামবিলাস বেদান্তি

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নাইডুর মতে, এটি একটি আইনি প্রক্রিয়া যা হতে দেওয়া উচিৎ৷ তিনি বিশ্বাস করেন, নেতারা নির্দোষ, তাই তাঁরা এর থেকে বেরিয়েও আসবেন৷ মামলা চলছে, তাই তিনি এ বিষয়ে বিশেষ মন্তব্য করবেন না বলেও জানান৷

উল্লেখ্য, ১৯৯২ সাল থেকে পঁচিশ বছরেরও বেশি সময় ধরে চলছে এই বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলা৷ এই মামলায় অভিযুক্ত ১২জন জামিন পেলেও, ১২০-বি ধারায় মামলা চলবে৷ চলতি বছরে জুলাইয়ে রাষ্ট্রপতি পদের জন্য নির্বাচন হওয়ার কথা৷ তবে এই পদের জন্য ময়দানে আদবাণীকে দেখা যাবে কিনা, সে বিষয়ে উঠছে প্রশ্ন৷