স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: ভ্যালেন্টাইন ডে কতভাবেই না উদযাপন চলছে। তেমনি নির্বাচন কমিশনের বার্তা নিয়ে পূর্ব বর্ধমানের মেমারি-১ এর ব্লক প্রশাসন এদিনটাতেই ছক্কা হাঁকাতে চেয়েছে। একেবারে গোলাপের তোড়া নিয়ে ব্লকের কর্মীরা হাজির মেমারি কলেজে। প্রতি ছাত্রছাত্রীর হাতে একটি করে গোলাপ তুলে দেওয়া হয়।

প্রেম নিঃস্বার্থ হলেও এই কর্মসূচির একটা উদ্দেশ্য আছে। নতুন প্রজন্মের ভোটারদের কাছে ইভিএম ও ভিভিপ্যাট-এর কার্যকারিতা তুলে ধরা হয়। ছাত্রছাত্রীরাও মহড়া ভোট দিয়ে ভিভিপ্যাট যন্ত্রে তার প্রতিফলন দেখে নেয়। এরপর শপথ বাক্য পাঠ হয়। প্রশাসনের বার্তা ‘ভালোবাসো ইভিএম-ভিভিপ্যাট, হৃদয়ে রাখো গণতন্ত্রকে। আর শক্তিশালী গণতন্ত্র গড়ে তুলতে অঙ্গীকার বদ্ধ হও।’ এখানে উপস্থিত ছিলেন ব্লক আধিকারিক বিপুল কুমার মণ্ডল ও মেমারি কলেজের অধ্যক্ষ দেবাশিস চক্রবর্তী।

তাদের বোঝানো হয় ইভিএম ও ভিভিপ্যাটের কার্যকারিতা৷ এই মেশিনে ভোটাররা তাদের দেওয়া ভোট সাত সেকেন্ডের জন্য মেশিনে ভেসে উঠতে দেখতে পাবেন। মূলত নিজের ভোট সঠিক স্থানে পড়েছে কিনা তা যাচাইয়ের জন্যই এই ভিভিপ্যাট মেশিনের ব্যাবহার হবে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে। এবার প্রথম লোকসভা ভোটে ভিভিপ্যাটের ব্যবহার শুরু করছে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন।

ভোটার ভ্যারিফায়েড পেপার অডিট ট্রেল বা সংক্ষেপে ভিভিপ্যাট দেশ ও রাজ্যের সঙ্গে বর্ধমানেও ব্যবহার করা হবে। এর ফলে সংশ্লিষ্ট ভোটার নিজের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার পর তিনি নিশ্চিত হতে চাইলে এই বিশেষ যন্ত্রের সাহায্যে তা ফের দেখে নিতে পারবেন। তার আগে এই ব্যবস্থা সম্পর্কে কলেজ পড়ুয়াদের প্রশিক্ষণ ও সচেতন করতে নানান উদ্যোগ নিয়েছে প্রশাসন।