স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দেশজুড়ে করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলায় ৫ এপ্রিল ৯ মিনিটের জন্য দেশবাসীর কাছে মোমবাতি, প্রদীপ জ্বালানোর আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর এক আবেদনকে তীব্র কটাক্ষ করলেন কংগ্রেসের লোকসভার দলনেতা অধীর চৌধুরী। সেইসঙ্গে তিনি জানালেন, এই আবেদনে সাড়া দেবেন না। অধীর বলেন, “এই পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য পর্যাপ্ত ওষুধ, হাসপাতাল, বেড, ভেন্টিলেটর, ডাক্তার-নার্সদের পোশাক দরকার। তা না করে উনি মোমবাতি জ্বালাতে বলছেন। আমার মনে হয়, এটা ভারতবর্ষের মানুষের সঙ্গে ছেলেখেলা হচ্ছে।”

বহরমপুরের পাঁচ বারের সাংসদ আরও বলেন, “আসলে এসব করে উনি প্রমাণ ও প্রতিষ্ঠা করতে চাইছেন যে, মোদী যেটা ভাবে সেটাই ভারতবর্ষ ভাবে। মোদী যেটা করে সেটাই ভারতবাসী করে।” এরপরই প্রধানমন্ত্রীকে তীব্র আক্রমণ করে অধীর বলেন, “লোকের পকেটে পয়সা নেই, রেশন নেই, মানুষ কাল কি খাবে জানে না, আর প্রধানমন্ত্রী বলেছেন মোমবাতি জ্বালাতে।পরিকল্পনা করে করোনা পরিস্থিতিকে রাজনৈতিক ইভেন্ট বানাচ্ছেন তিনি।মোমবাতি জ্বালিয়ে কি করোনার মোকাবিলা করা যাবে? যদি যেত তাহলে একটা নয়, আমরা হাজারটা মোমবাতি জ্বালাতাম। তাই নীতিগত কারণেই আমি ৫ এপ্রিল মোমবাতি জ্বালাবো না। নরেন্দ্র মোদী আপনি আপনার রাজনৈতিক খেলা বন্ধ করুন।”

করোনাভাইরাস আতংকে দেশ জুড়ে যে সঙ্কটময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তার বিরুদ্ধে সকলকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। গত ২৫ মার্চ দেশ জুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন তিনি। ঠিক তার ৯ দিনের মাথায় আজ, শুক্রবার ফের দেশবাসীর উদ্দেশে করোনা নিয়ে ভাষণ দিলেন মোদী। তিনি বলেন, “লকডাউনের আজ নবম দিন। আপনারা যে ভাবে সরকারকে সহযোগিতা করেছেন তা প্রশংসনীয়।” এরপরই দেশবাসীর কাছে ৯ মিনিট সময় চেয়ে নিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

শুক্রবার সকাল ন’টায় দেশবাসীর উদ্দেশে করোনা নিয়ে ভাষণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন, “৫ এপ্রিল আপনাদের সকলের কাছ থেকে ৯ মিনিট সময় চেয়ে নিচ্ছি। ওই দিন রাত ৯টায় ৯ মিনিটের জন্য সকলে ঘরের আলো নিভিয়ে রাখুন।” পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, “ওই সময় বাড়িতে থেকেই প্রদীপ, মোমবাতি, টর্চ জ্বালান। তাও যদি না হয়, মোবাইলের ফ্ল্যাশ লাইট জ্বালান।” মোমবাতি, প্রদীপ জ্বালিয়ে করোনাকে কি আদৌও ধ্বংস করতে পারবেন মোদী? ইতিমধ্যেই বিরোধীদের অনেককেই এই প্রশ্ন তুলেছেন।

যদিও বিজেপি শিবিরের বক্তব্য, এই কঠিন পরিস্থিতিতে দেশে একতার বার্তা দিতেই এই আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। গেরুয়া শিবিরের এই যুক্তিকেও তীব্র কটাক্ষ করেছেন অধীর চৌধুরী। খোঁচা দিয়ে তিনি বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী এখন ভারতবর্ষের মানুষকে একসঙ্গে মোমবাতি জ্বালাতে বলছেন, কারণ ভারতের মানুষের নাকি একতা দরকার। কিন্ত এদেশে তো একতার কোনও ঘাটতি নেই। মানুষের মধ্যে আমরা যদি সাম্প্রদায়িক রাজনীতি, বিভাজনের রাজনীতি না করি তাহলে কারোর ক্ষমতা নেই ভারতবর্ষের একতাকে ধ্বংস করা।”