স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: এনআরএস কাণ্ডে বাকি জেলার হাসপাতালগুলির সঙ্গে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে দুই দিন ব্যাপী জুনিয়র চিকিৎসকদের কর্ম বিরতির চলছে৷ বুধবার সেখানে গিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দেন বহরমপুরের কংগ্রেসের সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী৷

সেখানে গিয়ে তিনি বলেন, এই ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী অতিসত্বর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। এখন তাঁর দম্ভ ত্যাগ করা উচিত৷ নাহলে এই সমস্যা আরও বৃহৎ আকার ধারণ করতে পারে। এই ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করেন তিনি৷ জানান প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসা মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন৷

এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়র চিকিৎসকদের মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে রাজ্য জুড়ে চলছে জুনিয়র ডাক্তারদের ধর্না ও কর্মবিরতি। সেই আঁচ এসে পৌঁছেছে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল ও কলেজ হাসপাতালে। মঙ্গলবার সকাল থেকেই মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে জরুরি পরিষেবা বন্ধ রেখে ধর্নায় বসেছে জুনিয়র চিকিৎসকরা৷ এর জেরে সম্পূর্ণ ব্যাহত আছে জরুরি সহ অন্যান্য চিকিৎসা পরিষেবা।

পরিষেবা বন্ধ থাকায় বাধ্য হয়েই অনেক রোগী হাসপাতাল ছেরে অন্যত্র বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি হন। রাত ভোর অবস্থান বিক্ষোভ চলার পর বুধবার সকাল থেকে ফের আউটডোর সহ জরুরি পরিষেবা বন্ধ রেখে ধর্নায় বসে জুনিয়র চিকিৎসকরা। অনেক রোগীকে বাধ্য হয়ে ছুটি দিয়ে দেওয়া হয় হাসপাতালের তরফ থেকে।

বুধবার সকাল থেকেই প্ল্যাকার্ড হাতে হাসপাতাল চত্বরে মিছিল করে জুনিয়র ডাক্তাররা। এরপর ফের জরুরি বিভাগের কাছে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করে তারা। কাজ বন্ধ রেখে দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখান চিকিৎসকরা। নিরাপত্তা সুনিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মবিরতি চলবে বলে জানান তারা৷ জুনিয়র ডাক্তাররা।