স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: করোনা পরিস্থিতিতে গোটা বিশ্বের পাশাপাশি চরম অর্থনৈতিক সংকট দেখা দিয়েছে এদেশেও। এই পরিস্থিতিতেও বাংলাকে নিয়ে ‘পজিটিভ’ বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যে বেকারত্বের হার ৪০ শতাংশ কমেছে বলে যুবদিবসে দাবি করেছিলেন তিনি।

তাঁর এই দাবিকেই তীব্র কটাক্ষ করলেন বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী। অধীর চৌধুরীর কথায়, “সারা পৃথিবীতে বেকারত্ব বাড়ছে, সেখানে মুখ্যমন্ত্রী ৪০% কমিয়ে ফেললে ওনার তো নোবেল পাওয়া উচিত।”

তিনি আরও বলেন, “সরকার বেকারদের জন্য কিছু না করতে পারুক, বেকারত্বের জ্বালায় যাঁরা ভুগছে, তাঁদের সঙ্গে পরিহাস করা বন্ধ হোক।” উল্লেখ্য, বুধবার আন্তর্জাতিক যুব দিবসে ট্যুইটে মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, “গোটা দেশে যখন বেকারত্ব কমার হার ২৪ শতাংশ, সেখানে আমাদের বাংলায় সেই হার ৪০ শতাংশ।

এর অর্থই হল, পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্ব দ্রুত কমছে। অনেক আগে থেকেই বাংলার যুবক–যুবতীরা গোটা দেশকে পথ দেখিয়েছে। সেই কাজ ভবিষ্যতেও তাঁরা করে যাবে বলেই আমার বিশ্বাস।”

সম্প্রতি গোটা দেশের নিরিখেই প্রকাশিত হয়েছে CMIE-র রিপোর্ট। সেই রিপোর্ট অনুযায়ী, চলতি বছরের জুন মাসে দেশে বেকারত্বের হার ১১%। যা মে মাসের ২৩.৫% এর থেকে কম, তবে এতে উদ্বেগ কমার কোনও পরিস্থিতি নেই।

যদিও গোটা দেশের নিরিখে উল্লেখযোগ্য ভাবে কমেছে পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্বের হার। যা কমে দাঁড়িয়েছে ৬.৫%। সেই রিপোর্টের পরই মুখ্যমন্ত্রী ট্যুইট করে লিখেছিলেন, “করোনাভাইরাস ও আমফানের কারণে ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলার মধ্যেও ব্যাপক অর্থনৈতিক পরিকল্পনা করেছি আমরা। যার প্রমাণ মিলছে রাজ্যের বেকারত্ব হার নিয়ে CMIE-র তথ্যে।”

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও