বসিরহাট: বিজ্ঞান নিয়ে রাজ্যপালের দেওয়া আজব তত্ত্বের সমালোচনায় কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী। রাজ্যপালকে পাগল বলেও কটাক্ষ করলেন বহরমপুরের সাংসদ। রাজ্যপাল উদ্ভট চিন্তাধারার লোক বলেও কটাক্ষ করেন কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী।

বিজ্ঞান নিয়ে অদ্ভুত সব যুক্তি দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যপালের দাবি উড়ন্ত যানের ব্যবহার বিংশ শতাব্দীতেই প্রথম নয়। রামায়ণেও নাকি উড়ন্ত যানের ব্যবহারের উল্লেখ পাওয়া যায়। একইভাবে পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহারও ভারতে বহু আগেই হয়েছিল বলে দাবি করেছিলেন রাজ্যপাল। সেই প্রসঙ্গে জগদীপ ধনখড় বলেন, ‘বিংশ শতাব্দী নয়, তার আগেও রামায়ণে উড়ন্ত যানের ব্যবহার ছিল। অর্জুনের তিরে ছিল পরমাণু অস্ত্র।’

রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের বক্তব্যকে পাগলের প্রলাপ বলে মন্তব্য করলেন কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরি। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে রাজ্যপালকে কটাক্ষ করে অধীর বলেন, ‘‌রাজ্যপাল উদ্ভট সব কথা বলছেন। আমরা কোথায় যাব। অর্জুনের তিরে যদি পরমাণু বোমা থাকে তাহলে এত গবেষণার দরকার কী?‌ এই সব পাগলকে কোথায় বসিয়ে রাখা হয়েছে দেখুন। উদ্ভট চিন্তাধারার লোক আমাদের রাজ্যপাল। সব পাগল তো আর পাগলা গারদে থাকে না। বাইরেও কেউ কেউ ঘোরাফেরা করে।’‌

পরমাণু ও উড়ন্ত যানের ব্যবহার প্রসঙ্গে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের এই মন্তব্যের কড়া সমালোচনায় সরব হয়েছেন বিজ্ঞানীরা। অনেকে রাজ্যপালের মস্তিষ্কবিকৃতি হয়েছে বলেও কটাক্ষ করেছেন। অদ্ভুত সব মন্তব্য করে রাজ্যপাল নিজের পদের অবমাননা করছেন বলেও অভিযোগ করেছেন কয়েকজন বিজ্ঞানী।

বিজ্ঞানী ও একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের পাশাপাশি এবার রাজ্যপালের সমালোচনায় সরব কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী। এরই পাশাপাশি নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহেরও কড়া সমালোচনা করেছেন ওই কংগ্রেস সাংসদ। মোদী-শাহকে কটাক্ষ করে অধীর বলেন, ‘দিল্লির রঙ্গা-বিল্লা যা বলবেন তাই শুনতে হবে নাকি। ওঁদের জমিদারি চলছে। মানুষের জীবনের প্রয়োজনকে ভুলিয়ে দিয়েছে এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইন। ৭০ বছর আগের ভয়াবহ পরিস্থিতি ফিরিয়ে এনেছে বিজেপি।’