স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন আরও একবার মোদী সরকারকে আক্রমণ করলেন লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। তাঁর কটাক্ষ, “এটা নাগরিকত্ব আইন না, নজর ঘুরিয়ে দেওয়ার আইন”। অধীর চৌধুরীর বক্তব্য, “দেশের বেকারত্ব, অর্থনৈতিক অবস্থা ও শিল্পের দুরাবস্থা থেকে নজর ঘোরানোর জন্য এই আইন করা হয়েছে। এটা কোনও নাগরিক আইন নয়, দেশের সমস্যা থেকে নজর ঘুরিয়ে দেওয়ার আইন।” একটি হোয়াটস আপ ভিডিওতে এই বার্তা দিয়েছেন তিনি।

প্রথম থেকেই এন আর সির বিরোধিতা করছে কংগ্রেস, তৃণমূল সহ বিরোধী দলগুলি। সংসদে নাগরিক বিল পাশের পরই অধীর চৌধুরী বলেছিলেন, “দেশের সংখ্যালঘু বর্গকে নিশানা করতেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আনা হয়েছে”। এদিন ভিডিও বার্তায় বহরমপুরের সাংসদ বলেন, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা সমস্ত অমুসলিমদের ভারতে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে এই নিয়ম ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর থেকেই চালু রয়েছে। মোদী-অমিত শাহ রাজনীতি করার জন্য এটাকে এখন আইনে পরিণত করলো।

ওরা একটা ভারতীয় মুসলিমকে দেশছাড়া করতে পারবে না। কারণ এই দেশ ওদের জমিদারি নয়।”ইতিমধ্যেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বৈধতার চ্যালেঞ্জে একাধিক মামলা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। বৃহস্পতিবার শীর্ষ আদালতে পিটিশন দায়ের করে ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ এই রাতেই ক্যাবে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের পরই তৃণমূল ও কংগ্রেসও শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সংবিধানের মৌলিক অধিকার খর্ব করছে, এই অভিযোগে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র শীর্ষ আদালতে একটি মামলা করেছেন। একই অভিযোগে পিটিশন দায়ের করেন কংগ্রেস সাংসদ জয়রাম রমেশও।