স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজারহাটে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ওপর হামলার অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরব হলেন লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী। তিনি বললেন, “আমার সঙ্গে বিজেপির আদর্শগত বিরোধ থাকলেও বিজেপি দলের রাজ্য সভাপতির ওপর হামলা বরদাস্ত করা যায় না। এটা বাংলার ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। শাসকদল যে বিরোধীদের সঙ্গে কি ব্যবহার করছে আজকের ঘটনা তার প্রমাণ।”

সম্প্রতি দিলীপ ঘোষ নিউটাউনের জোতভীম এলাকায় নতুন একটি আবাসনের ফ্ল্যাটে থাকতে শুরু করেছেন। সেখানে প্রতিদিনই মর্নিং ওয়াকে বেরিয়ে জনসংযোগ সারেন তিনি। স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি চা চক্রের মতো ছোট ছোট কর্মসূচিও করেন। বুধবারও তেমনই একটি চা চক্রের আয়োজন করা হয় ওই আবাসনের পিছনের দিকে আঠেরতলা বাজারে। দিলীপ ঘোষ সেখানে যাওয়ার আগে থেকেই সেখানে গন্ডগোল শুরু হয়। তিনি পৌঁছনোর পর তা চরমে ওঠে।

অভিযোগ, সেই সময় দিলীপ ঘোষ বাজারে ঢুকতে গেলে তাঁকে বাধা দেয় তৃণমূল কর্মীরা। বিজেপি কর্মীদের পাশাপাশি খোদ সাংসদকেও আক্রমণ করা হয় বলে অভিযোগ। বিজেপির কয়েকটি গাড়িতেও ভাঙচুর করা হয়েছে।

ঘটনার নিন্দা করেছেন বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ তথা লোকসভার বিরোধী দলনেতা অধীর চৌধুরী। তিনি বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে যাঁরা সরকারি দল, তাদের কক্ষমতায় টিকে থাকার মূল হাতিয়ার সন্ত্রাস, পুলিশ, দুর্নীতি। কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে রাজনৈতিক বিরোধ বা মতাদর্শগত ভাবে বিরোধ থাকতে পারে। কিন্তু ভারতবর্ষের কোনও স্বীকৃত দলের নেতা-কর্মী কারও উপরেই হামলা মেনে নেওয়া যায় না। আমার সঙ্গে বিজেপিরও রাজনৈতিক বিরোধ আছে। কিন্তু আমি এটা অস্বীকার করতে পারব না যে, তারা মানুষের ভোটে জিতে কেন্দ্রে ক্ষমতায় এসেছে। কিন্তু একটা দলের রাজ্য সভাপতিকে মারধরের ঘটনা কখনওই মেনে নেওয়া যায় না। দিলীপ ঘোষের উপর আক্রমণের দ্ব্যর্থহীন ভাষায় নিন্দা করছি।”

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ