স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কংগ্রেসকে নিয়ে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে না ভাবার পরামর্শ দিলেন বহরমপুরের সংসদ তথা লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী। মমতাকে খোঁচা দিয়ে তিনি বলেন, তৃণমূলেরই এখন অবস্থা খারাপ।

একুশে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে বিজেপিকে আক্রমণের পাশাপাশি কংগ্রেস-সিপিএমকেও সতর্ক করলেন মমতা বন্দ্যোপাধায়। সিপিএম-কংগ্রেসের উদ্দেশ্য তৃণমূল নেত্রী বলেন, “ওরা বিজেপির বিরুদ্ধে লড়ছে না। আপনাদের সমর্থন চাই না। কিন্তু যে ডালে বসে রয়েছেন তা কাটবেন না।”

এরপরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে অধীর চৌধুরী বলেন, “কংগ্রেসকে নিয়ে ভাবতে হবে না ওনাকে। কংগ্রেস দুর্বল হয়েছে ঠিকই, কিন্তু তাঁদের দলের নীতি-নৈতিকতা আছে। তাই কংগ্রেস ঘুরে দাঁড়াবেই। কংগ্রেস ডাল কাটছে না, বরং দিদিভাই আপনিই গাছের গোড়া কেটে বসে আছেন। আপনি আপনার দল নিয়ে ভাবুন। কংগ্রেসকে নিয়ে ভেবে কালক্ষেপ করার দরকার নেই। ওটা আমাদের ভাবতে দিন।”

অধীর চৌধুরীর মন্তব্য, ” কংগ্রেসকে নিয়ে ওনাকে ভাবতে হবেই। কারণ কংগ্রেস ছাড়া বাঁচার পথ নেই মমতা দেবীর।” এদিন দলীয় নেতৃত্বের উদ্দেশ্যে মমতাকে এ-ও বলতে শোনা যায়, “পাড়ায় ভাল বামপন্থী এবং কংগ্রেস কর্মী থাকলে দলে টানুন।” মমতার এ হেন মন্তব্যে কংগ্রেসের লোকসভা দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন, “ওদের মধ্যে কে ভাল খুঁজে বার করতে হবে। দিদির কথায়, তৃণমূল তো কাটমানিতে রূপান্তরিত হয়েছে।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।