স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করলেই সারদা কাণ্ডের আসল অপরাধীরা সামনে আসবে। এমনই দাবি লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরীর। রাজীব কুমারের গ্রেফতারির উপরে রক্ষাকবচ প্রত্যাহার করার জন্য হাইকোর্টের বিচারপতিদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার সারদা মামলায় রাজীব কুমারের গ্রেফতারির উপরে রক্ষাকবচ প্রত্যাহার করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। এরপরই এদিন বিকেলে পার্ক স্ট্রিটে রাজীব কুমারের সরকারি বাসভবনে পৌঁছন সিবিআই আধিকারিকরা। ৩ ফেব্রয়ারিও এডিজি সিআইডি রাজীব কুমারের বাড়িতে পৌঁছেছিল সিবিআই। সে বার পুলিশ বাধা দিয়েছিল সিবিআই আধিকারিকদের। এমনকি তাঁদের আটকও করা হয়েছিল। তবে এবার আর সিবিআইকে আটকায়নি পুলিস। কলকাতা পুলিস সূত্রে খবর, রাজীব কুমার ছুটিতে রয়েছেন। নিজের দফতরেও হাজির হননি।

এপ্রসঙ্গে অধীর চৌধুরী বলেন, “রাজীব কুমার একজন পুলিশ অফিসার। সারদা মামলায় তাঁকে কেন এতবার কোর্টে ছুটতে হচ্ছে বুঝতে পারছি না। তিনি কোনও অন্যায় না করলে তাঁর রক্ষাকবচ কিসের দরকার? মুখ্যমন্ত্রীই কেনই বা তাঁকে বাঁচানোর এত চেষ্টা করছেন? অন্য কোনও পুলিশ অফিসারের জন্য তো তিনি রাস্তায় নামছেন না!”

অধীর আরও বলেন, “সারদা কেলেঙ্কারির রহস্য উন্মোচনের জন্য রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করা দরকার, তাঁর স্বীকারোক্তি আদায় করা দরকার। “

উল্লেখ্য, সারদাকাণ্ডের তদন্তে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে সিট গঠন করেছিলেন তার প্রধান ছিলেন রাজীব কুমার। ইতিমধ্যেই আদালতে সিবিআইয়ের আইনজীবীরা দাবি কিরেছেন, অভিযুক্তদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সারদার বহু নথি ও অন্যান্য তথ্যপ্রমাণ সরিয়েছেন রাজীব কুমার।

সিবিআইয়ের দাবিতে সায় দিয়ে বহরমপুরের সাংসদ বলেন, “কার নির্দেশে তথ্যপ্রমাণ লোপাট করেছেন রাজীব কুমার এবং তার জন্য তিনি কি প্রতিশ্রুতি পেয়েছেন সেটা জানা বাংলার মানুষের দরকার।”