স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: ভোটার কার্ড নিয়ে সাধারণ মানুষের আতঙ্ক দূর করতে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনারের দ্বারস্থ হলেন লোকসভার কংগ্রেস দলনেতা অধীর চৌধুরী । সোমবার দিল্লির মুখ্য নির্বাচনী কার্যালয়ে যান তিনি। সেখানে নির্বাচনী আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক হয় তাঁর।

অধীর চৌধুরী বলেন, এনআরসিকাণ্ডের পর ভোটার তালিকায় নাম তালিকাভুক্ত করা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা গিয়েছে৷ সেকারণেই কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনারের কাছে গিয়েছিলাম আমি৷ তাঁদেরকে জানিয়েছি, এই আতঙ্ক কাটাতে ব্লক লেভেলের কর্মীদের আরও সক্রিয় করা হোক৷

পড়ুন আরও- এনআরসি আতঙ্কের মধ্যেই ভোটার কার্ড নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত, জেনে রাখুন

অধীর বলেন, “ভোটার ভেরিফিকেশন সারা দেশ জুড়ে চলছে। আমার জেলা মুর্শিদাবাদ যথেষ্ট পিছিয়ে পড়া জেলা। সেখানকার মানুষের মধ্যে নানা বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে। আমি বলেছি বিষয়টি আরও সরলীকরণ করতে। জাতীয় গ্রামীণ মানুষের পক্ষে বিষয়টি সহজ হয়। ভোটার ভেরিফিকেশনের নামে যাতে বিষয়টিকে সাধারণ মানুষের কাছে ভয়াবহ না দেখানো হয়। সেই বিষয়ে উদ্যোগ নিতে অনুরোধ করেছি কমিশনার কর্তাদের।”

সম্প্রতি এনআরসি নিয়ে যে বিভ্রান্তিমূলক প্রচার প্রসঙ্গ নির্বাচন নিয়ে আধিকারিকদের সঙ্গে কথা হয় অধীর চৌধুরীর। এ প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, “সম্প্রতি অসম এনআরসি নিয়ে মানুষের মধ্যে ভয় তৈরি হয়েছে। এনআরসি ভোটার ভেরিফিকেশন দুটি সম্পূর্ণ পৃথক বিষয়। তো সাধারণ মানুষ ভাবছে যে আমি যদি ভোটার তালিকা নাম তুলতে না পারি তাহলে আমি ডি ভোটার হয়ে যাব। আমাকেও দেশ ছেড়ে যেতে হতে পারে।”

এনআরসি নিয়ে একাধিকবার মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অধীর চৌধুরী৷ অসমে এনআরসিতে ১৯ লক্ষেরও কিছু বেশি মানুষের নাম বাদ যাওয়ার পর কেন্দ্রকে এক হাত নিয়ে অধীর বলেছেন, “দেশটা ওদেরই। ওরা যেখানে ইচ্ছা সেখানে এনআরসি পরিচালনা করবে। তারা অসম এনআরসি পরিচালনা করতে সক্ষম হন নি, তারা অন্য রাজ্যেও যেতে পারেন। তাদের সংসদেও এনআরসি করা উচিৎ! আমার বাবা তো বাংলাদেশে থাকতেন, তাহলে আমিও বহিরাগত!”