নয়াদিল্লি: ৭৪ তম স্বাধীনতা দিসব উদযাপনের পথে ভারত। আর তারই প্রাক্কালে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। চলতি বছরে দেশের ঘটে যাওয়া একের পর এক উল্লেখযোগ্য ঘটনা ও অতিমারী নিয়েই কথা বললেন তিনি।

এদিন তিনি বলেন, ভারতে অতিমারীতে কারা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত। তাঁদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার কী ভেবেছে, সেকথাও উল্লেখ করেন তিনি।

গালওয়ানে চিন সেনার সঙ্গে সংঘাতের কথাও উঠে আসে তাঁর ভাষণে। শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, শত্রুপক্ষকে তাঁরা বুঝিয়ে দিয়েছেন যে কীভাবে জবাব দিতে হয়। এছাড়াও শিক্ষানীতির কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

# রাম মন্দিরের ভূমি পূজনের কথা উল্লেখ করলেন রাষ্ট্রপতি। বললেন, ‘১০ দিন আগেই রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। দেশের মানুষ শীর্ষ আদালতের বিচার সম্মানের সঙ্গে মেনে নিয়েছে। এতদিন ধরে ধৈর্য্য ধরেছিল দেশের মানুষ।’

# নতুন শিক্ষানীতি নিয়ে কথা বললেন রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, এই নীতিতে ভারতের একতা আরও জোরদার হবে।

#গালওয়ানে শহিদ সেনাদের শ্রদ্ধা জানাচ্ছে গোটা দেশ। তাঁরা বুঝিয়ে দিয়েছেন যে দেশের প্রতি আঘাত এলে, কড়া জবাব দেওয়া হবে: রাষ্ট্রপতি।

#শুধু নিজের দেশ নয়, অন্যান্য দেশের দিকেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত: রাষ্ট্রপতি

#’বন্দে ভারত মিশন’: বিদেশ আটকে পড়া মানুষকে ফেরানো হয়েছে: রাষ্ট্রপতি

#দেশের দরিদ্র মানুষকে সাহায্য করার জন্য কেন্দ্র একাধিক স্কিম এনেছে বলে উল্লেখ করলেন কোবিন্দ।

#দেশের দরিদ্র মানুষ ও দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ এই অতিমারীতে সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে: রাষ্ট্রপতি।

#পশ্চিমবঙ্গে আমফানে হওয়া ব্যাপক ক্ষতির কথা বললেন রাষ্ট্রপতি।

#দেশের করোনা যোদ্ধাদের সম্মান জানালেন রামনাথ কোবিন্দ।

#দেশের মানুষ এবং বিদেশ বসবাসকারী ভারতীয়দের স্বাধীনতা দিবসের অভিনন্দন।

স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিচ্ছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও