মুম্বই: এক-শৃঙ্গ গণ্ডার বা ভারতীয় গণ্ডার সুরক্ষার সচেনতায় আগেই অংশ নিয়েছেন রোহিত শর্মা৷ ভারতের “দুর্বল” প্রজাতি সম্পর্কে সচেতনতা প্রচারে সক্রিয়ভাবে যোগ দিয়ে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন টিম ইন্ডিয়ার এই ডানহাতি ওপেনার৷ ভারতীয় রাইনো পরিবারের নতুন সংযোজনকে স্বাগত জানালানে ‘হিটম্যান’৷

নিজের ইনস্টাগ্রামে গণ্ডার ও শিশু গণ্ডারের একটি ছবি-সহ স্টোরি শেয়ার করে রোহিত লিখেছেন, ‘মানস জাতীয় উদ্যানে ভারতীয় গণ্ডার পরিবারে নতুন সংযোজন উদযাপন করে।’ ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার অর্থাৎ ডব্লিউডব্লিউএফ (WWF) ভারতও তাদের ইনস্টাগ্রামে রোহিতের এই স্টোরি শেয়ার করেছে।

পরিসংখ্যান অনুসারে এই মুহূর্তে বিশ্বে প্রায় ৩,৫০০ ভারতীয় গন্ডার অবশিষ্ট রয়েছে৷ এর মধ্যে ৮২ শতাংশ ভারতে রয়েছে৷ এক সময় সিন্ধু, গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্র নদীর অববাহিকায় প্রচুর পরিমাণে দেখা গেলেও বর্তমানে এই প্রাণীটি কেবল অসম, পশ্চিমবঙ্গ, বিহার এবং উত্তরপ্রদেশের নির্বাচিত পকেটে পাওয়া যায়। তবে অসমে এই দুর্লভ প্রাণীগুলি ননাবিধ সমস্যার আরও কমতে শুরু করেছে৷ চোরা শিকারী, বাসস্থান হ্রাস এবং প্রজনন ও রোগের ফলে গণহারে মৃত্যু হচ্ছে ভারতীয় এই গণ্ডারের৷

২০১৮ সালে ডব্লিউডব্লিউএফ ইন্ডিয়া-তে রাইনো সংরক্ষণের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসাবে যোগ দিয়েছেন রোহিত। দুর্লভ এই প্রাণীর সচেতনা প্রচারে এগিয়ে আসেন টিম ইন্ডিয়ার এই ক্রিকেটার৷ গত সপ্তাহে রোহিতের ৩৩ তম জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানায় ডব্লিউডব্লিউএফ ইন্ডিয়া৷

টুইটারে লেখা হয়েছিল, ‘আমরা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি৷ এটি গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা সেই পথে আনন্দ উদযাপন করি- আমাদের গন্ডার রাষ্ট্রদূত রোহিতের শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। রোহিত শর্মা ২০১৮ সাল থেকে গণ্ডারের অ্যাম্বাসাডের রয়েছেন- গণ্ডার সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে ও আমাদের সহায়তা করে৷’ টুইটারের উত্তরে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন রোহিত৷

২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ ক্রিকেটে ম্যাচ উইনিং সেঞ্চুরি রোহিত উৎস্বর্গ করেছিলেন সুদানকে৷ যে ছিল বিশ্বের শেষ পুরুষ নর্দান রাইনো৷ ওই বছর মার্চে মারা যায়৷

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প