অরুণাভ রাহারায়, কলকাতা: আষাঢ় মাসের সন্ধ্যায় ঝিরিঝিরি বৃষ্টিতে গান-কবিতা নিয়ে আড্ডা দিতে কার না ভালো লাগে? আরোই আনন্দ হয় যখন সেই আড্ডায় পাওয়া যায় প্রিয় শিল্পীদের। গান ও কবিতা নিয়ে খোলামেলা আড্ডায় শ্রোতার মুখোমুখি আসতে চলেছেন শ্রীকান্ত-শ্রীজাত এবং তন্ময় চক্রবর্তী। বুধবার তাঁদের আনুষ্ঠানিক আড্ডা ‘মেঘপিওন’ অনুষ্ঠিত হবে উত্তম মঞ্চে সন্ধে সাড়ে ৬ টায়।

বর্ষা-বৃষ্টি বিষয়ে শ্রীকান্ত-শ্রীজাতর নানা কাজ আগেই চোখে পড়েছে বাঙালির। শ্রীজাতর কথায়, জয় সরকারের সুরে জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী শেয়া ঘোষালের “আমার মেঘলা দিনের ডানা আমার কাক ভেজা ঠিকানা কেমন ঘুম পাঠায় ভিজে কলকাতায়” গানটি নানা বয়সি সঙ্গীতপ্রিয় মানুষের মুখে মুখে ঘোরে। এছাড়াও একটি কবিতায় শ্রীজাত বর্ষার কথা লিখেছেন এইভাবে– “এল আকাশ ভেঙে বৃষ্টি, তোমার বাদামরঙা লিপস্টিক গলে তৈরি হল বর্ষা…”।

অন্যদিকে, শ্রীকান্তর গাওয়া “আমার সারাটা দিন মেঘলা আকাশ বৃষ্টি তোমাকে দিলাম” গানটি বেশ জনপ্রিয়। সে জন্যই হয়তো প্রিয় শিল্পীদের সঙ্গে বর্ষার আড্ডা দেওয়ার জন্য আপেক্ষা করে আছেন বহু শ্রোতা। মেঘপিওনের আড্ডা প্রসঙ্গে শ্রীকান্ত বলেছেন, “মেঘপিওন নামের একটি সন্ধে বেলায় শ্রোতার সামনে থাকব আমি ও আমার দুই বন্ধু শ্রীজাত এবং তন্ময় চক্রবর্তী। আমার গানের সঙ্গে ওদের কবিতা আর আমাদের তিনজনের আড্ডাটা শ্রোতার মন্দ লাগবে বলে মনে হয় না।

কবি শ্রীজাত এই মুহূর্তে দেশের বাইরে। সুদূর প্যারিস থেকে তিনি এই অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে জানিয়েছেন– “শ্রীকান্তদা আর তন্ময়ের সঙ্গে গান কবিতা আড্ডা নিয়ে হাজির থাকব আমিও। আমাদের এই ধরণের আড্ডা মাঝে মধ্যেই বসে। এবার আমরা ভাবলাম, শ্রোতাদের সঙ্গে সেটা ভাগ করে নিলে কেমন হয়? সেই কারণেই এই আয়োজন। আশা করি আমরা সক্কলে মিলে একটা দারুণ সন্ধ্যা কাটাব।”

ঋতুপর্ণ ঘোষ পরিচালিত ‘তিতলি’ ছবিতে রয়েছে সেই গান– “মেঘপিওনের ব্যাগের ভেতর মনখারাপের দিস্তা/ মনখারাপ হলে কুয়াশা হয় ব্যাকুল হলে তিস্তা”। গানটি লিখেছিলেন ঋতুপর্ণ নিজেই। গানের কথাগুলিতে অনুরণিত হয়েছে পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের গভীর কাব্যবোধ। এই গানটির জন্য ঋতুপর্ণকে ‘কবি’ বলতেন কেউ কেউ। গানটির সুর দিয়েছিলেন দেবজ্যোতি মিশ্র এবং গেয়েছিলেন শ্রীকান্ত আচার্য। সেদিনের আড্ডায় গানটি তৈরি হয়ে ওঠার গল্পও শোনাবেন শ্রীকান্ত। সন্ধ্যাটির আয়োজন করেছে ‘মিউজিয়ানা’।