স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: উত্তরণের পথ দেখাতে নাটকের শহরে উপস্থিত রঙ্গিনী। টপ্পা ঠুমরী ক্লাসিক সহ বিভিন্ন লোকসঙ্গীতকে সংলাপের আকারে ব্যবহার করে রচিত রঙ্গিনী মঞ্চস্থ হচ্ছে বালুরঘাটের সত্যজিৎ মঞ্চে। আগামী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে ছয়টার এই নাটককে ঘিরে ইতিমধ্যেই নাটকের আঁতুড়ঘরে উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। রঙ্গিনীর ভূমিকায় অভিনয় করবেন টলিউডের খ্যাতনামা অভিনেত্রী গার্গী রায় চৌধুরী।

নাট্যকার উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় রচিত এই নাটকটির গত ২৯ মে কলকাতায় প্রিমিয়ার শো সম্পন্ন হয়েছিল। তারপর বিভিন্ন মঞ্চের এবার বালুরঘাটে মঞ্চস্থ হতে চলেছে। ব্রাত্য বসু নির্দেশিত এই নাটকে রঙ্গিনী ভিড়ের মাঝে জনতা নয়। জনতার মাঝে একক হয়ে থাকতে চেয়েছে। অভিনেত্রী গার্গী চট্টোপাধ্যায় এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, রঙ্গিনী এমন একটা আগুন। যে আগুন পোড়ায় না। উত্তরণের পথ দেখায়। নাটকে তিনি একাই সচল ধারায় দশটি চরিত্রে অবতীর্ণ হয়েছেন।

সিনেমা ও সিরিয়ালের প্রতিষ্ঠিত এই অভিনেত্রী আরও জানান, থিয়েটার তাঁর কাছে একটা আবেগ। ব্যস্ততার কারণে মাঝে বেশ কিছু সময় তা করতে পারেননি। এবার দীর্ঘ দশ বছর পর তিনি ফের থিয়েটারের মঞ্চে এসেছেন। সেই সঙ্গে নাট্যকার মন্মথ রায় ও হরি মাধব মুখোপাধ্যায়ের এই শহরে অভিনয়ের সুযোগ পেয়ে খুবই গর্বিত অনুভব করছেন তিনি।

নাট্য ব্যক্তিত্ব তথা আইপিএস প্রসূন বন্দোপাধ্যায় রঙ্গিনী গার্গী রায় চৌধুরী সম্পর্কে বলেছেন, অভিনয় দুনিয়ায় তিনি বহুরূপী। বাংলা সিনেমা ও ধারাবাহিক টিভি সিরিয়ালের বিভিন্ন চরিত্রে দক্ষতার পরিচয় তিনি রেখেছেন। তাঁর অভিনীত সিনেমাগুলির মধ্যে রয়েছে উল্লেখযোগ্য হল নকশাল, রামধনু, মৃণালিনী সহ আরও অনেক। যেগুলিতে কখনও তিনি আত্ম-দাম্ভিক অতৃপ্ত অভিনেত্রী ও অসহায় দিদি অপর্ণা বন্দোপাধ্যায়। কখনও মধ্যবিত্ত পরিবারের অসহায় মা মিতালী দত্ত। আবার কখনও কিছু মানুষের বেঁচে থাকার রসদ পারমিতা। যে চরিত্রগুলিতে গার্গী রায় চৌধুরীর অসামান্য অভিনয় আজও তাঁর মনে গেঁথে রয়েছে।