স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: শাসক দলের ঘনিষ্ঠ অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ৷ তৃমমূলে যোগ দিয়ে রাজ্যের বৃত্তিমূলক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সংসদের সভাপতিও হয়েছিলেন৷ কিন্তু শাসক দলের বিরুদ্ধে এ কি কথা শোনালেন তিনি৷ তাও আবার দলের সুপ্রিমোর বিরুদ্ধে৷ বললেন কাটমানির বিকল্প ব্ল্যাকমানি হতে পারে না৷

২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,‘ব্ল্যাকমানি ফিরিয়ে দাও’। বিজেপির দিকে আঙুল তুলে তিনি আরও বলেন, ‘ব্ল্যাক মানির জবাব চাই, জবাব দাও। নির্বাচনের খরচ কোথা থেকে এসেছে, জবাব দাও।’মমতার এই বক্তব্যে অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ জানান,কাটমানির বিকল্প ব্ল্যাকমানি হতে পারে না৷

শহীদ দিবসের অর্থাৎ ২১ জুলাই মঞ্চে এবার গড়হাজির ছিলেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ৷ কেন এলেন না, তার উত্তরে যা বললেন, তাতে শাসকদলের যে অস্বস্তি বেড়েছে বলাই যায়৷ অভিনেতা জানান, ‘আমি তো কোনও রাজনৈতিক কর্মী না৷ আমি একটা সরকারের সমর্থক৷ সেখান থেকে মনে হয়েছিল ২১ জুলাই মঞ্চে গেলে ভুলটাকেই সমর্থন করা হবে৷ নেত্রীর কাছে বিভিন্ন জায়গা থেকে যে খবরগুলো যায় তা ভুল৷

তাছাড়া অনেক সময় উনি কিছু লোকের কথা কানে শুনে বিশ্বাস করেন৷ মানুষ যে সরে যাচ্ছেন, সেগুলো মনে হয় তার কাছে পৌঁচাচ্ছে না৷ তিনি নিজেই কাটমানি শব্দটা নিয়ে এসেছেন৷ এবং রোজ লোকে টাকা ফেরত দিচ্ছে৷ তাতে লোকের কাছে একটা বার্তা যাচ্ছে যে, এই দলটা বুঝি কাটমানিতেই চলে৷

যদিও রুদ্রনীলের এই কথায় দলের ভাবমূর্তি রক্ষায় মাঠে নামতে হয়েছে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্ট্যোপাধ্যায়কে৷ তিনি জানান, রুদ্রনীলকে যে অন্য রাজনৈতিক দল চেষ্টা করে নিজেদের দিকে টানার, তা রুদ্রনীল আমাকে নিজেই বলেছে,কিন্তু যায়নি,আর যাবে না৷ কেউ দল ছেড়ে যাবে না৷

তবে তাহলে কি রুদ্রনীল বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন৷ তার উত্তরে বলেন,বিজেপিকে এখনও চিনে উঠতে পারিনি৷ কারণ, ক্ষমতায় না এসেই, বিজেপির কিছু নেতা তৃণমূলের একাংশের মতোই উগ্র ব্যবহার করছেন৷ এমনকী, টলিউডে বিজেপির দু’টো গোষ্ঠী রয়েছে৷ তাই এখনই পদ্ম শিবিরে যোগদানের কথা ভাবছি না৷