মুম্বই: কঠিন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন বাহুবলী খ্যাত দক্ষিণী অভিনেতা রানা দাগগুবাতি। সম্প্রতি একটি টক শোয়ে এই খবর প্রকাশে এনেছেন অভিনেতা। জানিয়েছেন তিনি এক জটিল রোগে আক্রান্ত, যার ফলে তার কিডনি বিকল হয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর আগেও রানার স্বাস্থ্য সম্পর্কে নানা রকম খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে ছিল। তবে এই প্রথম তিনি নিজের স্বাস্থ্য সম্পর্কে খোলাখুলি কথা বললেন।

গতবছর খবর ছড়ায় যে রানা কঠিন অসুখে আক্রান্ত হয়ে কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট করিয়েছেন। সেই সময় খবরটি ভুয়ো বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন অভিনেতা। টক শোয়ে রানা বলেছেন, “জীবন যখন খুব দ্রুত চলে তখন একটা কিছু তা থামিয়ে দেয়।” এর পরেই রানা তার অসুখ সম্পর্কে বলেন, “৭০ শতাংশ সম্ভাবনা রয়েছে স্ট্রোক ও হেমারেজ এর। ৩০ শতাংশ মৃত্যুর সম্ভাবনা রয়েছে।”

এছাড়া কিডনি বিকল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন রানা। কয়েক মাস আগেই বিয়ে করেছেন দক্ষিণী অভিনেতা। আর বিয়ের ঠিক পরেই এমন কঠিন সময়ের মধ্যে এসে পড়েছেন রানা দাগগুবাতি। তাই এইসব কথা বলতে বলতে ভেঙে পড়েছিলেন অভিনেতা। তবে তারপরে চোখের জল মুছে জানান তিনি আশাহত নন।

রানার ভক্তরা এই খবরে বেশ ভেঙে পড়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন অভিনেতার। গতবছর রানা কিছু ছবি শেয়ার করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে তার ভেঙে পড়া চেহারা দেখে ভক্তরা আশঙ্কা করেছিলেন যে তার শরীর ঠিক আছে কিনা। কিন্তু সেবার রানা জানান তিনি সুস্থ আছেন। কিন্তু এবার যে তিনি সত্যিই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তা খোলাখুলি সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন অভিনেতা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।