কলকাতা: ভারতে বন্ধ হয়েছে ৫৯টি চাইনিজ অ্যাপ। এবার চিনা সংস্থার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেন অভিনেতা জিৎ। ডিজিটাল অ্যাওয়ার্ডে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কারের জন্য তার নামটি নির্বাচিত হয়। কিন্তু সেই পুরস্কার তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। কারণ অনুষ্ঠানটি সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে চিনা সংস্থার স্পনসর্শিপ। আর তাই এই পুরস্কার না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জিৎ।

নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটনার কথা শেয়ার করেছেন তিনি। একটি ভিডিও পোস্ট এর মাধ্যমে ব্যাপারটি জানিয়েছেন ভক্তদের। জিৎ বলছেন, “ভোটিংয়ের মাধ্যমে ডিজিটাল আমাকে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। যারা নিজেদের সময় ব্যয় করে আমায় ভোট দিয়েছিলেন সেই অনুরাগীদের অসংখ্য ধন্যবাদ। কিন্তু অনেকেই জানেন না হয়তো, এই অনুষ্ঠানটি সঙ্গে যুক্ত রয়েছে একটি চিনা সংস্থা।”

তিনি আরও বলছেন, “আমার নিজের কোনো অভিযোগ নেই। কিন্তু যেহেতু চিনের সঙ্গে আমার দেশের সম্পর্ক এখন ভালো যাচ্ছে না এবং আমাদের সীমা সেনারা শহিদ হচ্ছেন তাই এই পুরস্কার নিতে আমার ইচ্ছে করেনি। সীমান্তে গিয়ে আমরা লড়তে পারবোনা কিন্তু নিজেদের দেশের জন্য এটুকু করতেই পারি। যতদিন না দেশের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো হচ্ছে আমি ততদিন এই পুরস্কার নিতে পারবো না। আশা করছি আপনারা আমাকে বুঝবেন। আপনাদের ভালোবাসাই আমার কাছে বিরাট পুরস্কার।”

প্রসঙ্গত গত ২৯ জুন টিক টক সহ ৫৯ টি চাইনিজ অ্যাপস বন্ধ করে দিয়েছে ভারত সরকার। লাদাখের গান উপত্যকায় চিনা হামলার পর থেকেই চিনা দ্রব্য নিষিদ্ধ করার পক্ষে সওয়াল করেছিল দেশের মানুষ। আর তারপরই এই বড় সিদ্ধান্ত নেয় ভারত সরকার। টিকটক ছাড়াও যে প্রচলিত বন্ধ হয় সেগুলি হল শেয়ার ইট, হ্যালো, ক্যাম স্ক্যানার, ইউসি ব্রাউজার, জেন্ডার, বিউটি প্লাস, উইচ্যাট, শিইন, ক্লিন মাস্টার প্রভৃতি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ