নয়াদিল্লি: সাধারণ নির্বাচনে ভোটে আদৌ লড়ছেন না অভিনেতা অক্ষয়কুমার ৷ তাঁর ভোটে লড়া নিয়ে যে জল্পনা তৈরি হয়েছিল সেটা তিনি আজ পুরোপুরি উড়িয়ে দেন৷ তিনি যে রাজনীতিতে আসছেন না এবং ভোটেও দাঁড়াচ্ছেন না তা জানিয়ে এই অভিনেতা আজ টুইট করেছেন৷

টুইট করে অক্ষয়কুমার লিখেছেন, তিনি সকলের কাছে কৃতজ্ঞ যারা আমার আগের টুইট দেখে উৎসাহ প্রকাশ করেছেন কিন্তু এই বিষয় ঘিরে জল্পনার ব্যাপারে আমি ব্যাখ্যা দিচ্ছি- আমি ভোটে লড়ছি না৷’’ এমন জল্পনার কারণ হল তিনি এদিন সকালের টুইটে জানিয়েছিলেন- ‘‘অজানা অপরিজ্ঞাত অঞ্চলে আজ প্রবেশ করছি ৷ এমন কিছু করতে চলেছি যা আগে কখনও করিনি৷ একই সঙ্গে উত্তেজিত এবং স্নায়ুর চাপে পীড়িত ৷ এর আপডেটের জন্য টিউন করুন৷’’

অভিনেতাদের মধ্যে অক্ষয়কুমারকে প্রায়ই টুইটে দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীরকে ট্যাগ করে দিতে ৷ জনগনকে বেশি ভোট দেওয়ার কথা বলতেও তাঁকে দেখা গিয়েছে৷ প্রধানমন্ত্রী মোদীকে বার্তা দিয়ে ট্যাগ লাইন করা হয়েছে তাঁর ছবি ‘‘টয়লেট : এক প্রেম কথা’’৷

আবার মোদীও তাঁকে, ভূমি পেন্ডেকার এবং আয়ুসমান খুরানাকে বলেছিলেন, ‘‘থোড়া দম লাগাইয়ে আউর ভোটিং কো এক সুপারহিট কথা বানাইয়ে৷’’ সম্প্রতি অক্ষয়কুমারকে দেখা যাচ্ছে ‘কেশরী’ ছবিতে ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।