পাটনা : মালিকের স্ত্রীয়ের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগে এক ব্যক্তির চোখে ইনজেক্ট করা হল অ্যাসিড৷ ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের তেঘরা জেলার পিপরা চৌক এলাকায়৷ অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ পুলিশ সূত্রে এই খবর জানানো হয়েছে৷

এলাকার ডেপুটি পুলিশ সুপার বি কে সিং জানিয়েছেন, আক্রান্ত ওই ব্যক্তি পেশায় চিকিৎসক৷ তাঁর বাঁ চোখ গুরুতর জখম হয়েছে৷ তাঁর বয়স ৩০ বছর৷ সমস্তিপুরের বাসিন্দা সে৷ ঘটনার পর সে অন্ধ হয়ে গিয়েছে৷ আপাতত তাঁর চিকিৎসা চলছে৷

পুলিশের কাছে যে বয়ান দেওয়া হয়েছে, তা অনুযায়ী ঘটনার সূত্রপাত ৬ ফেব্রুয়ারি৷ তেঘরা জেলার বারুনি গ্রামে ট্রাক্টর চালাতেন ওই ব্যক্তি৷ মালিকের স্ত্রীয়ের সঙ্গে তাঁর অ্যফেয়ার ছিল বলে শোনা যায়৷ ৬ ফেব্রুয়ারি তাঁরা দুজন পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ৷ এর পর মালিক থানায় অভিযোগ দায়ের করেন৷ তাঁর অভিযোগ ছিল, স্ত্রীকে অপহরণ করেছেন ওই ড্রাইভার৷

আরও পড়ুন : বিজেপিকে ভোট না দিলে কাটা হবে গ্যাস লাইন,হুমকি মন্ত্রীর

১৬ ফেব্রুয়ারি ওই মহিলা গ্রামে ফিরে আসেন৷ স্থানীয় থানায় তিনি তাঁর স্টেটমেন্ট রেকর্ড করেন৷ আদালত তাঁর স্বামীকে নির্দেশ দেয়, স্ত্রীকে যেন তিনি ফিরিয়ে নিয়ে যান৷

কিন্তু শনিবার সন্ধ্যায় ওই ড্রাইভার একটি ফোন পান৷ ফোনটি করেছিল মহিলার দেওর৷ তিনি বলেন বউদি তাঁর দাদার সঙ্গে থাকতে চান না৷ তাই তিনি যেন এসে বউদিকে নিয়ে যান৷ ওই ব্যক্তিকে তেঘরা থানায় ডাকা হয়৷ কিন্তু রাস্তাতেই তাঁকে ২০ জন ঘিরে ফেলে৷ প্রথমে তাঁকে মারধর করা হয়৷ এরপর সিরিঞ্জ দিয়ে তাঁর চোখে অ্যাসিড ঢুকিয়ে দেওয়া হয়৷ ওই অবস্থায় ওই ব্যক্তিকে হনুমান চৌকের কাছে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় তারা৷ স্থানীয়রা ঘটনাটি দেখতে পেয়ে ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যায়৷

ঘটনার অভিযোগ পেয়েছে পুলিশ৷ এখনও পর্যন্ত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ ঘটনার তদন্ত চলছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ৷