স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: ২০১৯ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ। পরীক্ষা শুরু হওয়ার কিছুক্ষনের মধ্যে পরীক্ষার প্রশ্ন মোবাইলে চলে আসে বলে অভিযোগ৷

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে প্রাপ্ত

আজই পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথম দিনই প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ উঠল। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য এলাকায়। প্রশ্নপত্রর ছবি দেখে হতবাক জলপাইগুড়ি জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক করন (মাধ্যমিক শিক্ষা)।

জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক আধিকারিকদের মোবাইলেও এসেছে সেই ছবি। রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শিক্ষা দফতরের আধিকারিকদের মধ্যে৷ ছবি দেখে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ডি আই স্বপন সামন্ত। জেলার সব স্কুলকে সতর্ক করা হয়েছে৷

আজ থেকে শুরু হয়েছে এবছরের মাধ্যমিক পরীক্ষা। এবার ছাত্রদের থেকে ছাত্রীদের হার ১৩ শতাংশ বেশি। মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১০ লক্ষ ৬৪ হাজার ৯৮০। প্রশ্নফাঁস রুখতে কড়া মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। তবে শেষ রক্ষা যে হল না তা বলাই বাহুল্য৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।