হাওড়া: শালিমার স্টেশনে শেড ভেঙে দুর্ঘটনা। আহত বহু। আহতদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। প্লাটফর্মে উপর শেড তৈরি হচ্ছিল। সেই শেড সোমবার দুপুরে আচমকা ভেঙে যায় সম্পূর্ণভাবে। শেডের তলায় একাধিক বাইক ছিল। সেই বাইকগুলিও ভেঙে গিয়েছে।

এর আগে সাঁতরাগাছি স্টেশনে ওভারব্রিজ ভেঙে পড়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটেছিল। গুরুতর আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। শেড ভাঙার সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুতের খুঁটিও ভেঙে পড়ে। ফলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলেও খবর। গত বছর সাঁতরাগাছি স্টেশনের ফুট ওভারব্রিজে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় দুই যাত্রীর। আহত হন ১৪ যাত্রী।

২ ও ৩ নম্বর স্টেশন সংযোগকারী ফুটব্রিজে পদপিষ্ট হয়ে নিহত দুই যাত্রী। ১২ জন আহত হন। সন্ধে ৬ টা থেকে সাড়ে ৬ টার মধ্যে সাঁতরাগাছি স্টেশনে তিনটি ট্রেন আসে। তিনটি ট্রেন কোন প্ল্যাটফর্মে দেওয়া হবে তা আগে থেকে ঘোষণা হয়নি। সেই কারনে যাত্রীরা ফুট ব্রীজে দাড়িয়েছিলেন। অফিসের ছুটির সময় যাত্রী সংখ্যা ছিল অনেক বেশী। ১৫ মিনিটের মধ্যে তিনটি ট্রেন চলে আসায় যাত্রীদের মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়।

ফুট ব্রিজের একদিক দিয়ে যাত্রী ওঠা অন্যদিক দিয়ে যাত্রী নামায় চাপাচাপি শুরু হয়। এই ঘটনায় পদস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় দুজনের। ট্রেন ধরতে একসঙ্গে অনেক লোক ফুট ব্রিজে উঠে যাওয়ায় পরিস্থিতি খারাপ হয়ে যায়। অনেক মানুষ হুড়োহুড়ি করছিলেন, সেইসময় পদপিষ্ট হন যাত্রীরা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ