সবে মার্চ মাস। জুন-জুলাই আসতে এখনও ঢের দেরী। এদিকে তাপমাত্রার পারদ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। একে চৈত্রের কাঠফাটা রোদ তার উপর ভোটের উত্তাপ। বৈশাখের আগেই গরমে একেবারে নাজেহাল অবস্থা সবারই। যদি চৈত্রেই এই অবস্থা হয় তাহলে একবার ভাবুন তো বৈশাখ, জৈষ্ঠ্যমাসে কী হতে পারে?

যেভাবে তাপমাত্রার পারদ উপর দিকে ব্যাটিং হাঁকাচ্ছে তাতে কদিন বাদে ফ্যানের হাওয়াতে গরম কুলোবে না। কুলারের হাওয়াও ব্যর্থ হবে ঘর ঠান্ডা করতে। গ্রীষ্মের দাবদাহে রাস্তায় বেরোনো দুষ্কর। তার উপর ঘরে এসেও যদি শান্তি না পান তাহলে তো গরমের হাত থেকে বাঁচতে বনবাসে চলে যাওয়াই ঢের ভালো।

 

যদিও এটা কখনই সম্ভব নয়। কী ভাবছেন ভর দুপুরে গরমে তেতে ওঠা ছাদ আর চার দেওয়ালের মাঝে একটু শান্তিতে ঘুমোবেন কীভাবে? অফিসের কাজ হোক বা ঘরের। সারাদিন খেটেখুটে যদি একটু আরাম না পাওয়া যায় তাহলে কী আর এই গরমে মাথা ঠিক থাকে। গরম ছাদের মতই মাথাও হয়ে যায় গরম।

তবে চিন্তা নেই এবার থেকে গরমে নিশ্চিন্তে বিশ্রাম নিতে বা ঘর ঠান্ডা রাখতে বাড়িতে একটা এসি আনতেই পারেন। ভাবছেন এই বাজারে জিনিসপত্রের যা দাম তাতে সাধ থাকলেও সাধ্য বা কোথায়? তাহলে বলতে হয়, এমন ভাবনা ছাড়ুন। পকেট ফ্রেন্ডলি বাজেটে অনলাইন সাইটে দুর্দান্ত অফারে বিকোচ্ছে এসি। ঘরে বসেই বিভিন্ন অনলাইন শপিং সাইটে গিয়ে কিনে ফেলুন মনপছন্দ এসি। আর আজই ঘরকে কুল রাখতে বাড়িতে নিয়ে আসুন এয়ার কন্ডিশনার। শুধু তাই নয়, আপনার পকেটের কথায় মাথায় রেখে রয়েছে স্বল্প টাকার ইএমআই’য়ের ব্যবস্থা। তাহলে আর চিন্তা কী এই গরমে নতুন কিছু করার চিন্তাভাবনা থাকলে চোখ বুজে ঘরে আনতে পারেন এসি। যা আপনাকে দেবে ভরা গরমে রিফ্রেশ থাকার স্বাদ। গরমের দিনগুলিতে বিশ্রামেও আনবে প্রশান্তির ছোঁয়া।

 

শুধু তাই নয়, ঘরে বসে অ্যামাজনে চোখ রাখলেই দেখতে পাবেন আকর্ষনীয় ছাড়ে বিক্রি হচ্ছে এয়ার কন্ডিশনার। ই-কমার্স সাইটে সব এসিতে ভাল অফারও রয়েছে।

তাহলে আর দেরী কেন ঘরে বসে আজই কিনে ফেলুন, Godrej, Hitachi, Whirpool, Samsung, Panasonic সহ একাধিক মনপছন্দ ব্র‍্যান্ডের এসি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.