বোলপুর: জেএনইউ এর পরে এবারে আক্রমণ বিশ্বভারতীতে। রাতের অন্ধকারে হোস্টেলে ঢুকে পড়ুয়াদের উপরে আক্রমণের অভিযোগ উঠল এবিভিপির বিরুদ্ধে। যার জেরে আবারও খবরের শিরোনামে উঠে এল বিশ্বভারতী।

বুধবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পরে একাধিক পোস্ট। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদ্যাভবন সিনিয়র বয়েজ হোস্টেলে ঢুকে দুজন ছাত্রের উপরে চড়াও হয় বহিরাগতরা। রাতে আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পরা ভিডিওতে কয়েকজনকে দেখা গিয়েছে। বিশ্বভারতীর পিয়ারসন মেমোরিয়াল হাসপাতাল সূত্র অনুযায়ী ছাত্ররা সেখানে ভর্তি হয়েছে। জানা গিয়েছে আহত ছাত্ররা বাম ছাত্র দলের সমর্থক।

বিগত কয়েকদিন ধরেই এনআরসি, সিএএ নিয়ে উত্তাল গোটা দেশ। আঁচ পড়েছে বিশ্বভারতীতেও। গত ৮ জানুয়ারী সেমিনারে এসে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। এসএফআই সহ অন্যান্য ছাত্র সংগঠনের দাবি, সেই কারণে হামলা চালানো হয়েছে পড়ুয়াদের উপরে। এই ঘটনার পরে অভিযোগের আঙুল উঠছে এবিভিপি ছাত্র সংগঠনের সদস্য অচিন্ত বাগদী এবং সাবির আলির দিকে। পুরো ঘটনাটি ইতিমধ্যে বোলপুর থানাতে জানানো হয়েছে।

যদিও অনেক রাত পর্যন্ত এবিভিপির কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তবে ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়াতে ভিডিও ভাইরাল হয়ে যাওয়াতে কিঞ্চিত অবাক হয়েছেন প্রাক্তন পড়ুয়া থেকে শুরু করে অনেকেই। গুরুদেবের বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি যে এইরকম দিকে যেতে পারে তা দেখে অবাক হয়েছেন অনেকেই।

এর আগে ৫ তারিখ দিল্লির জেএনইউতে পড়ুয়াদের উপরে আক্রমণ করা নিয়ে নড়েচড়ে বসেছিল দেশের পড়ুয়ারা। এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য প্রতিবাদে অংশ নিয়েছিল দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। আর এবারে আবারও সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল বিশ্বভারতীতে।