পাটনা: বিহারে এবারও বাজিমাত করতে চলেছে এনডিএ। বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ফের মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসতে চলেছেন নীতিশ কুমার, এবিপি-সি ভোটারের সমীক্ষায় এমনই ইঙ্গিত মিলেছে। শুক্রবারই বিহার ভোটে নির্ঘণ্ট প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। করোনা আবহে এবার বিহারে ৩ দফায় বিধানসভা ভোট অনুষ্ঠিত হতে চলেছে।

পড়ুন আরও- দারুণ সস্তায় বাড়ি-জমি কেনার সুযোগ, এসবিআইয়ের নয়া স্কিম

এবিপি-সি ভোটারের সমীক্ষায় বিহারের রায় নীতিশ কুমারের পক্ষেই। সমীক্ষা অনুযায়ী বিহারে জেডিইউ-বিজেপি জোট ১৪১ থেকে ১৬১টি আসন পেতে পারে। ৪৫ শতাংশ ভোট পেয়ে ফের ক্ষমতা দখল করতে পারে বিজেপি-জেডিইউ জোট। বিহারের ৮ শতাংশ ফের লালুপ্রসাদ যাদবকেই মুখ্যমন্ত্রীর আসনে দেখতে চান।

পড়ুন আরও- ফোনে কথা বলা নিয়ে চরম অশান্তি, বধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ

লালু-পুত্র তেজস্বী যাদবকে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে পছন্দ রাজ্যের ১৫ শতাংশ মানুষের। এবিপি-সি ভোটারের সমীক্ষা অনুযায়ী বিহারের কংগ্রেস ও আরজেডি-র ইউপিএ জোট ৩৩.৪৫ শতাংশ ভোট পেতে পারে। ৬৪ থেকে ৮৪ আসনে জয়লাভ করতে পারে কংগ্রেস-আরজেডি জোট।

বিহারে জেডিইউ-বিজেপি জোটে রয়েছে রামবিলাস পাসোয়ানের লোকজনশক্তি পার্টিও। রামবিলাসের পুত্র চিরাগ পাসোয়ানের তৎপরতায় সম্প্রতি সেই জোটে যুক্ত করা হয়েছে জিতেনরাম মাঝির দলকেও। সব মিলিয়ে ইউপিএ জোটকে টেক্কা দিতে অনেকটাই সক্ষম হতে পারে এনডিএ জোট।

এমনই ইঙ্গিত মিলেছে সাম্প্রতিক এই সমীক্ষায়।বিহারে এবার ৩ দফায় বিধানসভা ভোটগ্রহণ পর্ব চলবে। ভোটের ফল ঘোষণা করা হবে আগামী ১০ নভেম্বর। আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে বিহারে ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই আগামী মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে বিহারে বিধানসভা ভোট শুরু হয়ে যাচ্ছে। শুক্রবারই বিহারে ভোটের দিন ঘোষণা করেছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। তবে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে ভোটপর্ব চলাকালীন চূড়ান্ত সতর্কতামূলক ব্যবস্থার আয়োজন রাখতেও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে নির্দেশ দেবে কমিশন।

আগামী ২৮ অক্টোবর প্রথম দফার ভোটগ্রহণ। প্রথম দফায় বিহারের ৭১টি আসনে নির্বাচন হবে। এরপর ৩ নভেম্বর দ্বিতীয় দফায় ৯৪টি আসনে নির্বাচন হবে। তৃতীয় ও শেষ দফায় ৭৮টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ১০ নভেম্বর বিহারে বিধানসভা ভোটের ফল ঘোষণা করা হবে। বিহারের মোট ২৪৩টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ২৯ নভেম্বর শেষ হচ্ছে বিহারের বর্তমান সরকারের মেয়াদ।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।