স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নোবেল জয়ের পর প্রথম শহরে পা রাখলেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মঙ্গলবার সন্ধে ৭টা ২০মিনিট নাগাদ কলকাতা বিমানবন্দরে নামেন অভিজিৎ। এ দিন অভিজিৎকে বিমানবন্দরে রাজ্য সরকারের তরফে অভ্যর্থনা জানানো হয় ৷ মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনিক কাজে শিলিগুড়িতে থাকায় নোবেলজয়ীকে উত্তরীয় ও ফুলের স্তবক দিয়ে বিমানবন্দরেই শুভেচ্ছা জানান মেয়র ফিরহাদ হাকিম ও রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। তাঁকে শুভেচ্ছা জানাতে বিমানবন্দরের বাইরে জড়ো হয়েছিলেন দমদমের এলাকার বহু সাধারণ মানুষও। বিমানবন্দর থেকে তিনি সোজা বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের বাড়িতে গিয়েছেন৷

অভিজিৎকে স্বাগত জানাতে বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের বাড়ির চারপাশও সাজানো হয়েছে। বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডে অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তার দু’ধারে ব্যানার ও এলডিতে লেখা হয়েছে ‘বাংলা আপনাকে নিয়ে গর্বিত’। বাড়িতে অপেক্ষারত মা নির্মলা বন্দ্যোপাধ্যায়।কাজেই বিমানবন্দর থেকেই অভিজিৎ সোজা বাড়ির পথে রওনা হন।

বহুদিন বাদে নিজের হাতে রেঁধে ছেলেকে খাওয়াতে মুখিয়ে রয়েছেন মা। ছেলের জন্য কী কী রাঁধছেন মা নির্মলা বন্দ্যোপাধ্যায়? সংবাদমাধ্যমে নোবেলজয়ীর মা বলেন, ‘‘ও সবই খেতে ভালবাসে। মাছ খেতে ভালবাসে। কলকাতার মাছটা ভালবাসে’’। মাছের সঙ্গে মেনুতে আর কী কী থাকছে? জবাবে নির্মলাদেবী জানালেন, ‘‘মটন কাবাব বানাচ্ছি। রসগোল্লার পায়েস করব ভাবছি। এই আপাতত ভেবেছি’’।

আগে মহানির্বাণ রোডের বাড়িতে থাকতেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়রা। এই বাড়ি যাঁরা কিনেছেন, তাঁরাও চাইছেন নোবেলজয়ীর সঙ্গে দেখা করতে। সেখানেও অভিজিতের নামের ব্যানার। পরিবার সূত্রে খবর, অভিজিৎকে সংবর্ধনা দেবে তাঁর আবাসন। সাউথ পয়েন্ট ও প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তাঁকে সংবর্ধনা জানাবে। নোবেলজয়ীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে রাজভবনও। তিনি যেতে না পারলে তাঁর বাড়িতে গিয়েই নোবলজয়ীর সঙ্গে দেখা করতে চান রাজ্যপাল।

মঙ্গলবার সকালেই অভিজিৎ দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে। নিজের টুইট হ্যান্ডেলে এই বৈঠককে ‘সুষ্ঠু ও সদর্থক’ বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। অর্থনীতিবিদ নিজেও এই বৈঠককে ‘অনন্য অভিজ্ঞতা’ বলে বর্ণনা করেন।