স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তবে সেই মামলার চিঠি যদি অমিত শাহ গ্রহণ না করেন, তবে খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন হিসেবে তা ছাপাবেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷

দেশের গুরুত্বপূর্ণ খবরের কাগজগুলিতে অমিত শাহের বিরুদ্ধে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘লিগাল নোটিশ’ ছাপা হবে৷ কলকাতার মেয়ো রোডে অগস্টের প্রথম সপ্তাহে বিজেপি সভাপতি জনসভা থেকে হুঙ্কার দিয়েছিলেন, ‘ভাইপোর’ দূর্নীতি ফাঁস করে দেবেন৷

আরও পড়ুন: আন্তর্জাতিক মাদক পাচারচক্রের মূল পাণ্ডা গ্রেফতার

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো, তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ এবং তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক অমিত শাহের বিরুদ্ধে এর কিছুদিন পরই মামলা করেন৷

সেই মতো, মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের ৮ নম্বর আদালত থেকে অমিত শাহকে শমন পাঠানো হয় ২৯ অগস্ট৷ তবে শুক্রবার, বিজেপির পক্ষ থেকে আবেদন করে বলা হয়েছে, সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে শমন পাঠানো হয়েছে ৬ নম্বর মুরলীধর সেন লেনে৷

আরও পড়ুন: বেঙ্গল টাইগার্সের গর্জন থামিয়ে এশিয়া সেরা ভারত

ওই জায়গায় বিজেপির রাজ্য পার্টির সদর দপ্তর৷ বিজেপি অফিসে ভুলক্রমে ওই শমন গ্রহণ করা হয়েছিল৷ কিন্তু পরে তা আবার কোর্টে তা ফেরত পাঠিয়ে দিয়ে বলা হয় আবার এটিকে অমিত শাহের বাড়ির ঠিকানায় পাঠাতে হবে৷ কারণ, ৬ নম্বর মুরলীধর সেন লেন অমিত শাহের বাসস্থান নয়৷ যদিও সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতির বাসস্থানের কোনও ঠিকানা আবেদনে দেওয়া হয়নি৷

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে আইনজীবীর বক্তব্য, বিজেপির রাজ্য কমিটির সদস্য অজিত কুমার মিশ্র যে আবেদনে করেছেন, তা Self Contradictory ৷ তিনি এক জায়গায় বলছেন, অমিত শাহ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি, আবার জবাবদিহির অন্য জায়গায় তিনি বলছেন, বিজেপির লোকাল অফিস ভুলক্রমে ওই শমন গ্রহণ করেছিল৷

আরও পড়ুন: ফরাক্কায় জাতীয় সড়ক সংস্কার নিয়ে বৈঠক

অমিত শাহ যেহেতু বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি, সেক্ষেত্রে এই শমনের কথা তিনি জানেন৷ যদি না জানেন, তবে সর্বভারতীয় সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে তাঁকে জানানো হবে৷ আদতে তিনি এভাবে আদালতকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন৷

আরও পড়ুন: বার্সা ম্যাচে ১২ জনে খেলে কলঙ্কিত বাগান