কলকাতা: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নাকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘অমানবিক’ বলেছেন। আর সেই মন্তব্য নিয়েই তৃণমূল সাংসদকে ট্যুইটারে আক্রমণ করেন বাবুল সুপ্রিয়। এবার বাবুলকে সরাসরি আইনি নোটিশ ছুঁড়লেন অভিষেক।

শুক্রবার ট্যুইটে অভিষেকের একটি ভিডিও পোস্ট করে মন্তব্য করেন বাবুল সুপ্রিয়। যেখানে বাবুল লিখেছিলেন, মুখ ফসকে সত্যি কথাটা বেরিয়ে গেছে – “অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী”। আমি একটুও আশ্চর্য নই যে এটা পোস্ট করা ভিডিওতে রয়ে গেছে – কারণ যারা এটা শুট করেছে তারাও ‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী’ দিদির অমানবিক তৃণমূলী দুষ্কর্মে এতটাই লিপ্ত যে ভুল করে ‘বেরিয়ে’ যাওয়া এই সত্যটি ওরা ধরতেই পারেনি।”

এরপর শনিবারই বাবুলকে এই ট্যুইট নিয়েই আইনি নোটিশ দিয়েছেন অভিষেক। মিথ্যা ট্যুইটের অভিযোগ করা হয়েছে।

ওই ট্যুইট অবিলম্বে সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে যে, অভিষেক ‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী’ বলেননি, বলেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর অমানবিক পরিশ্রম।’

বাবুল সুপ্রিয়ের ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিওটি
বাবুল সুপ্রিয়ের ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিওটি

উল্লেখ্য, এই ভিডিও পোস্ট করার পর থেকেই বিরোধীদের কমেন্ট আসতে শুরু করে। অনেকেই বাবুলের ভুল শুধরে দেন। সেক্ষেত্রেও বাবুল অন্য একটি ট্যুইটে ব্যাখ্যা দেন। সেখানে তিনি লিখেছিলেন, ‘যে সমস্ত তৃণমূলী পন্ডিত ভিডিওটি নিয়ে আমার পোস্টটি নিয়ে এখানে বাংলা ভাষা নিয়ে ‘চর্চা’ করছেন, তাদের অত্যন্ত বিনম্রতার সাথে বলি যে ‘অমানবিক পরিশ্রম’ আর ‘অমানুষিক বা অতিমানুষক পরিশ্রম’ দুটো সম্পূর্ণ আলাদা !!”

ডিকশনারির ছবি পোস্ট করে তিনি দেখান, ‘অমানবিক’ শব্দটিইর প্রতিশব্দ আসলে ‘হৃদয়হীন’, ‘বর্বর’, ‘নির্দয়’, ‘নির্মম’ ইত্যাদি।

মহালয়ার সকালে ফেসবুক লাইভে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর অমানবিক এবং অক্লান্ত পরিশ্রমে, আজ বাংলায় তাঁর মস্তিস্কপ্রসূত একাধিক কর্মসূচি বিশ্বের দরবারে একাধিক দেশকে ছাপিয়ে বিশ্ব বন্দিত হয়েছে, সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর ফেসবুক বার্তার একেবারের শেষ দিকে বলেন, লড়াই করে বাংলা ঘুরে দাঁড়াবে। অশুভ শক্তির বিনাশ হবে, শুভ শক্তি জিতবে। বাংলা জিতবে, বলেও নিজের বিশ্বাসের কথা জানিয়েছেন তিনি।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।