স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: তিনি স্বশরীরে আছেন৷ আবার স্বশরীরে না থেকেও আছেন৷ পক্ষে তাঁকে নিয়ে যত চর্চা৷ বিপক্ষে বরং তার থেকে বেশি আলোচনা হয়৷

তিনি মুকুল রায়৷ এককালে তৃণমূল কংগ্রেসের নম্বর টু৷ এখন রাজ্য বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ নেতা৷ উত্তর ২৪ পরগনার নোয়াপাড়া বিধানসভা কেন্দ্রের প্রচারে তিনি যখন একদিকে বিজেপির প্রার্থী হয়ে ঘাম ঝরাচ্ছেন, তখন অন্যদিকে তাঁরই এককালের সতীর্থ তাঁর বিরুদ্ধে চাঁচাছোলা ভাষায় তোপ দাগছেন৷ বৃহস্পতিবারও সেই নিয়মের কোনও ব্যতিক্রম হল না৷

আরও পড়ুন: বিজেপির মুকুল-বিরোধী আলো ছিনিয়ে নিল তৃণমূল

এদিন নোয়াপাড়ায় তৃণমূলের প্রচার সভায় যোগ দেন যুব তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেখানে তিনি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় জানান, বিশেষ কারও নাম মুখে এনে তিনি সভাকে কলুষিত করতে চান না৷ তাঁর আক্রমণের লক্ষ্য যে মুকুল রায়, তা বুঝতে অসুবিধা হয়নি সামনে উপস্থিত জনতার৷ কারণ, একথা বলার কিছুক্ষণ আগেই অভিষেক বলেন, ‘‘বাপের ব্যাটা হলে নোয়াপাড়ায় নিজে দাঁড়িয়ে প্রমাণ করত৷’’ প্রসঙ্গত, মুকুল রায়ের বাড়ি কাঁচরাপাড়া৷ ওই এলাকার পাশেই নোয়াপাড়া বিধানসভা কেন্দ্র৷ ফলে ওই এলাকা মুকুলের খাসতালুক বলা চলে৷ তাই অভিষেক এই কটাক্ষ করেছেন বলেই রাজনৈতিক মহলের মত৷ ডায়মন্ড হারবারের সাংসদের মুখ থেকে এমন আক্রমণ শুনে তখন করতালিতে ফেটে পড়েছেন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা৷ ফলে হুড খোলা জিপে দাঁড়িয়ে সুর আরও চড়ান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বলেন, ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা সহজ৷ কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হওয়া সহজ নয়৷’’

আরও পড়ুন: সিবিআই তদন্তের দাবি তুললেন খুনের মামলায় অভিযুক্ত মুকুল

রাজ্য রাজনীতিতে মুকুল রায় চাণক্য নামে পরিচিত৷ তৃণমূলকে রাজ্য রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি মুকুলেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল বলে মনে করেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা৷ বৃহস্পতিবার সেই ‘চাণক্য’ বিশেষণ টেনে এনে মুকুলকে সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন তৃণমূলের এই তরুণ-তুর্কী৷ দাবি করেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত মাথায় ছিল বলেই মুকুল রায় চাণক্য হতে পেরেছিলেন৷

একই সঙ্গে এদিন বিজেপিকেও তোপ দেগেছেন অভিষেক৷ পদ্মাবত থেকে শুরু করে হিন্দুত্ব, নানা ইস্যুতে তিনি তোপ দেগেছেন বিজেপির বিরুদ্ধে৷ কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘‘চার আনার নকুলদানা, তার আবার ক্যাশ মেমো৷’’

আরও পড়ুন: ধর্মনিরপেক্ষ ভারতেই ‘হিন্দু রাষ্ট্র’ গঠন করতে চায় শিবসেনা