কলকাতা: দিলীপ-বাবুল সংঘাতের আবহে এবার আসরে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। দিলীপ ঘোষের উদ্দেশ্যে করা বাবুল সুপ্রিয়র টুইটের পালটা টুইট সর্বভারতীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। দিলীপ ঘোষের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েই প্রশ্ন তুললেন ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ। একইসঙ্গে দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের ব্যাখ্যা চেয়ে অস্বস্তি আরও বাড়ালেন গেরুয়া শিবিরের।

রবিবার নদিয়ায় একটি জনসভায় নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে প্রতিবাদ করায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র আক্রমণ করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কেন্দ্রীয় আইনের প্রতিবাদে গত ডিসেম্বরে এরাজ্যে ব্যাপক বিক্ষোভ-আন্দোলন চলে। আন্দোলনের নামে তাণ্ডবও চলে রাজ্যের বেশ কয়েকটি এলাকায়। বাস পুড়িয়ে, ট্রেন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান আন্দোলনকারীদের একাংশ। দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, রাজ্য প্রশাসনের নরম মনোভাবেই সিএএ ও এনআরসি বিরোধী আন্দোলন চূড়ান্ত পর্যায়ে গিয়েছিল।

আন্দোলনকারীদের একাংশকে নিশানা করে রবিবার দিলীপ বলেন, ‘এসব কি তাদের বাপের সম্পত্তি? করদাতাদের টাকায় তৈরি সম্পত্তি কীভাবে তারা নষ্ট করে। দেশবিরোধীদের উপর গুলি চালিয়ে ঠিক কাজই করেছে উত্তরপ্রদেশ, অসম ও কর্নাটক সরকার।’ মেদিনীপুরের সাংসদের এই মন্তব্যের পরই সমালোচনার ঝড় ওঠে রাজনৈতিক মহলে।

বিজেপিরই সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় দিলীপ ঘোষের কড়া সমালোচনা করেন। টুইট করে বাবুল লিখেছেন, ‘দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য করেছেন দিলীপদা। দিলীপ ঘোষ যা বলেছেন, তার সঙ্গে বিজেপির কোনও সম্পর্ক নেই। তিনি যা বলেছেন, সবটাই তাঁর মস্তিষ্কপ্রসূত।’ উত্তরপ্রদেশ বা অসমে কোথাও এই ধরনের ঘটনা ঘটেনি বলেও দাবি করেছেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।

বাবুলের টুইট প্রসঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে লেখেন, ‘দিলীপ ঘোষের দলের সাংসদই প্রকাশ্যে তাঁর বক্তব্য খণ্ডন করছেন। বাংলায় বিজেপিকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য তাঁর বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে গুরুতর সন্দেহ প্রকাশ করেছেন।’ একইসঙ্গে দিলীপ ঘোষকে তাঁর মন্তব্যের বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিতেও আবেদন করেছেন অভিষেক। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘দিলীপবাবু আপনার মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিন। অনুগ্রহ করে জানান যা বলেছেন সেটা কি আপনার নিজের মন্তব্য, নাকি আপনার দলের।’

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।