ইসলামাবাদ: ভারত-পাক ম্যাচ মানেই রুদ্ধশ্বাস উত্তেজনা। ক্রিকেটের ময়দান যেন কার্গিলের যুদ্ধক্ষেত্র। প্রতিটা মুহূর্তে মান বাঁচানোর লড়াই। যদিও বিশ্বকাপের ময়দানে পাকিস্তানের রেকর্ড খুব একটা ভালো নয়, তবু দুই দেশই গোটা টুর্নামেন্টে একটি ম্যাচেই নজর রাখে।

খেলার অনেক আগে থেকেই দুই দেশ চলে কর্মাশিয়ালের লড়াই। ওই একদিনের ম্যাচ ঘিরে তৈরি হয় কোটি কোটি টাকার বিজ্ঞাপন। আর এবার পাকিস্তান তাদের বিজ্ঞাপনের জন্য বেছে নিয়েছে উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে। এর আগেও চায়ের বিজ্ঞাপনে ভারতের বায়ুসেনা অফিসার অভিনন্দন বর্তমানকে টেনে নিয়ে গিয়ে কুরুচির পরিচয় দিয়েছিল। এবারও ফের সেই একই ব্যবহারের পরিচয় দিল পাকিস্তান।

৩৩ সেকেন্ডের একটি বিজ্ঞাপন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ভারতীয় বায়ু সেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের আদলে এক ব্যক্তিকে। অভিনন্দন বর্তমানের মতোই গোঁফ রয়েছে তাঁর। গায়ে ইউনিফর্মের বদলে ভারতীয় ক্রিকেট দলের জার্সির রঙের টি-শার্ট।

যখন পাকিস্তানে বন্দি হন অভিনন্দন, তখন পাক সেনার প্রশ্নের মুখে তাঁকে জবাব দিতে শোনা গিয়েছিল, ‘সরি, আমি আপনাকে এটা বলতে পারব না।’ শত্রুর চোখে চোখ রেখে অভিনন্দনের সেই সাহসী জবাবে কুর্ণিশ জানিয়েছিল গোটা দেশ। আর সেই জবাবকেই ব্যঙ্গ করেছে পাকিস্তান।

অভিনন্দনের মত দেখতে লোকটিকে এই বিজ্ঞাপনে জিজ্ঞেস করা হচ্ছে, ‘টস জিতলে কী করবে’? অভিনন্দনের উক্তি ধার করে এই অভিনেতা বলছেন, ‘আই অ্যাম সরি, আই অ্যাম নট সাপোজোড টু টেল ইউ দিস।’ এরপর প্রশ্ন, প্রথম একাদশ কী হবে? তাতেও একই উত্তর। চা কেমন? উত্তরে অভিনন্দনের কায়দায় এই অভিনেতা বলেন,‘ফ্যানটাস্টিক’। এরপর তাঁকে বলা হয়, আপনি যেতে পারেন। যেই ওই ব্যক্তি উঠে বেরতে যান, তাঁরা কাঁধে হাত দিয়ে আটকানো হয় ও বলা হয়, ‘এক মিনিট দাঁড়াও, কাপ কোথায় নিয়ে যাচ্ছ’, বলে তাঁর হতে থাকা চায়ের কাপটা নিয়ে নেওয়া হয়। তারপরই স্ক্রিনে ফুটে ওঠে ‘লেটস ব্রিং দ্য কাপ হোম’।

অর্থাৎ, ভারতের সঙ্গে ম্যাচ জিতে পাকিস্তান কাপ আনবে দেশে, সেই আশাতেই বানানো হয়েছে এই বিজ্ঞাপন। তবে ইতিহাস বলছে, এর আগে ১৯৯২ সাল থেকে ২০১৫-র বিশ্বকাপ পর্যন্ত ছ’বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত-পাকিস্তান। প্রতিবারই ভারতের কাছে পাকিস্তানকে হারতে হয়েছে।

আগামী ১৬ জুন ম্যাঞ্চেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ড স্টেডিয়ামে রয়েছে সেই মহারণ। আর তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে রয়েছে দুই দেশ। তবে তার আগেই এই বিজ্ঞাপন সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্যত যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি করেছে। ভারতীয়রা বলছেন, ‘পাকিস্তান, তোমরা চায়ের কাপটাই রেখে দাও। আসল কাপ আসবে আমাদের দেশেই।