ট্রেনটন: বলিউড প্লেব্যাক সিঙ্গার অভিজিতের আমেরিকার পুজোর সব শো বন্ধ করে দেওয়া হল৷ USA দুর্গা পুজো কমিটি থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ সৌজন্য #MeToo মুভমেন্টে তাঁর উপর ওঠা অভিযোগের পর অভিজিতের মন্তব্য৷

#MeToo মুভমেন্ট এখন ভারতে ভাল রকম সাড়া ফেলেছে৷ মহিলারা তাঁদের উপর হওয়া যৌন অত্যাচার নিয়ে মুখ খোলা শুরু করেছেন৷ এরপরই ক্রমশ প্রকাশ পেতে থাকে বিভিন্ন তারকার নাম৷ উঠে আসতে থাকে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ৷

বাদ পড়েননি গায়ক অভিজিত ভট্টাচার্যও৷ সম্প্রতি তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগকে নস্যাৎ করতে তিনি নিজে কিছু মন্তব্যও করেন৷ গন্ডগোল বাধে সেখানেই৷ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, তিনি ১৯৯৮ সালে এক বিমান সেবিকার উপর যৌন হেনস্থা করেন৷ এরপরই অভিজিত সেই অভিযোগ অস্বীকার করেন৷

তিনি এও জানান যে তিনি জীবনে কখনই পার্টিতে, পাবে ও পেজ থ্রির কোনও ইভেন্টে যাননি৷ তিনি তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগের পাল্টা হিসেবে বলেন, এগুলো সবই মিথ্যা অভিযোগ৷ তিনি অভিযোগকারিনীকে মোটা এবং জঘন্য দেখতে বলেও মন্তব্য করেন!

#MeToo-তে অভিজিত ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ আসার পরই তিনি জানান “কেউ একজন আমাকে কল করে জানান৷ আমি সেসময় জন্মাইনি৷ আমি জীবনে কখনও পাবে যাইনি৷ আপনি আমাকে কোনও পেজ থ্রি কিমবা ফিলমি পার্টিতে খুঁজে পাবেন না৷ আমার নামই বিক্রি হয়৷ যদি কেউ এটা থেকে উপকৃত হন তাহলে ভাল৷ কখনও সখনও তাদের রুটি রুজির জোগাড়ে আমার নাম ব্যবহার করেন৷ এটা ভাল৷” এক সংবাদ মাধ্যমকে ইন্টারভিউ দিতে গিয়ে একথা বলেন তিনি৷

এছাড়া তিনি আরও বলেন “আমি জানিনা কার বিরুদ্ধে আমি অ্যাকশন নেব৷ কেনই বা আমি সেই ব্যক্তিকে এত গুরুত্ব দেব? আপনি তাকে গুরুত্ব দিতে পারেন আমি নই৷ যারা সামনে আসছে তারা বেশিরভাগই নোংরা এবং কুৎসিত দেখতে৷”

এরপরই তোলপাড় হতে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়া৷ তার আঁচ গিয়ে পড়ে প্রবাসে থাকা ভারতীয়দের উপরও৷ পুজোর সময় বিদেশের পুজোগুলিতে দেশ থেকে বিভিন্ন শিল্পীকে নিয়ে যাওয়া হয় অনুষ্ঠান করতে৷ তাঁদের মধ্যে অন্যতম গায়ক অভিজিত৷ এবছরও বেশ কিছু জায়গায় তাঁর শো হওয়ার কথা৷ কিন্তু সারা বিশ্বে অভিজিতের মন্তব্যে হইচই পড়ে যায়৷ কারণ তিনি #MeToo-তে যৌন হেনস্তা নিয়ে অভিযোগ করা মহিলাদের নোংরা ও কুৎসিত বলে মন্তব্য করেন৷ যেটা মানতে পারছেন না কেউই৷ অভিজিত এই #MeToo মুভমেন্টকে ‘পাবলিসিটি স্টান্ট’ বলেও মন্তব্য করেন৷

ইতিমধ্যে আমেরিকায় প্রভাব পড়ে অভিজিতের মন্তব্য৷ নিউজার্সি পুজো কমিটি সিদ্ধান্ত নেয় অভিজিতের শো বাতিল করা হবে৷ নিউজার্সির পুজো কমিটি ‘কল্লোল নিউজার্সি’ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

সূত্র মারফত খবর পাওয়া গিয়েছে, এই পুজো কমিটির মহিলা সদস্যরা অভিজিতের শো বয়কট করার সিদ্ধান্ত নেন৷ তাঁরা অভিজিতের শো-এর বিরোধিতা করতে থাকেন৷ এরপরই গায়কের শো বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ এরপরই আমেরিকার যে সমস্ত বাঙালি ক্লাবগুলি আছে তাঁরাও বিষয়টি নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে বলে খবর৷

জানা গিয়েছে, বাকি দুর্গাপুজো কমিটি গুলিও একই সিদ্ধান্ত নিতে পারে৷ ফলে অভিজিতের এবছরের আমেরিকায় দুর্গা পুজোর অনুষ্ঠান করতে যাওয়া আর হয়ে উঠবে না বলে মনে করছে বিভিন্ন মহল৷