কলকাতা: অন্যান্য বারের তুলনায় ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের পারদ যে কিছুটা উঁচুতে, তা বলাই বাহুল্য। বাংলার চেনা রাজনৈতিক দলের বাইরেও অনেকগুলো নাম শোনা যাচ্ছে। এরই মধ্যেই হাজির পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকি। নতুন দল ঘোষণা করে ভোটের নয়া সমীকরণের ইঙ্গিত দিলেন বাংলায়।

বৃহস্পতিবার কলকাতায় সাংবাদিক সম্মেলন করে দলের নাম ঘোষণা করেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকি। দলের নাম দেওয়া হয়েছে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট।

প্রথমে ডিসেম্বর, পরে জানুয়ারির ১০ তারিখ ঠিক করা হয়েছিল নতুন দলের আত্মপ্রকাশের সময় হিসেবে। কিন্তু পরে চূড়ান্ত দিন ঠিক হয় ২১ জানুয়ারি। সেই মতে এদিন বিকেলে সাংবাদিক সম্মেলন করে নিজের দলের নাম ঘোষণা করলেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা। নতুন দলের নাম ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট। দলের চেয়ারম্যান করা হয়েছে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকির ভাই নৌসাদ সিদ্দিকিকে। তবে এদিনের দল ঘোষণার পরে ধর্মগুরুর দল ঘোষণাকে বঙ্গ রাজনীতির নতুন ট্রেন্ড বলেও বর্ণনা করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

জেলায় জেলায় সংগঠন বাড়ানোর পরিকল্পনার কথাও এদিন জানিয়ে দিয়েছেন আব্বাস সিদ্দিকি। তিনি বলেছেন, জেলায় জেলায় সভা করে দলের নাম জানানোর পাশাপাশি পতাকার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হবে সাধারণ মানুষকে।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের শুরুতে ফুরফুরা শরিফে এসেছিলেন মিমের কর্ণধার আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। তিনি জানিয়েছিলেন, রাজ্যে আব্বাস সিদ্দিকির নেতৃত্বেই লড়াই করবেন তাঁরা। এই ঘোষণার পর থেকেই আব্বাস সিদ্দিকির দল ঘোষণার জন্য অপেক্ষা করছিলেন অনেকেই।

আব্বাস সিদ্দিকি দল ঘোষণার পর বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে অনেক রাজনৈতিক দলই নিজেদেরকে ধর্মনিরপেক্ষ বলে দাবি করেছেন। কিন্তু সংখ্যালঘুদের পাশাপাশি তফশিলি জাতি উপজাতিদের সমস্যা দূর করতে কেউ পারেনি। আব্বাস সিদ্দিকি মুখে যাই বলুন না কেন, নিশানায় রয়েছে রাজ্যের অন্তত ৭৪ টি আসন। উত্তর দিনাজপুর, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, হাওড়া, হুগলি, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় আসনগুলি ছড়িয়ে রয়েছে। এই আসনগুলিতে সংখ্যালঘুর সংখ্যা ৬০ থেকে ৯০ শতাংশ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।