দুবাই: মিউজিক দুনিয়ায় তাঁর আবির্ভাব নতুন নয়। ২০১০ একটি বাই-লিঙ্গুয়াল মিউজিক ভিডিওয় গান গেয়েছিলেন তিনি। দশ বছর বাদে এসে গোটা মানবজাতি যখন করোনা নামক অতিমারীর কাছে মাথা নুইয়েছে ঠিক সে সময় ফের একবার গান গাইলেন আব্রাহাম বেঞ্জামিন ডি’ভিলিয়ার্স। করোনা আক্রান্ত বছরে আফ্রিকার পিছিয়ে পড়া দেশগুলির মানুষদের জন্য গায়ক-গীতিকার কারেন জোইডের সঙ্গে জুটি বাঁধলেন প্রাক্তন প্রোটিয়া ক্রিকেট অধিনায়ক।

কারেন জোইড এবং ডি’ভিলিয়ার্সের যৌথ উদ্যোগে প্রকাশিত এই মিউজিক ভিডিওর উদ্দেশ্য অতিমারী করোনার কারণে মুষড়ে পড়া মানবাজাতিকে অনুপ্রেরণা জোগানো। সবচেয়ে মজার ব্যাপার রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের এই ক্রিকেটার তাঁর মিউজিক ভিডিওয় সঙ্গে নিয়েছেন তাঁর ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের। যে তালিকায় রয়েছেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর অধিনায়ক বিরাট কোহলি, লেগ-স্পিনার যুবেন্দ্র চাহাল, ক্রিস মরিস। এছাড়াও মিউজিক ভিডিওয় গলা মিলিয়েছেন দুই প্রোটিয়া পেসার অ্যানরিচ নর্তজে এবং কাগিসো রাবাদা।

‘দ্য ফ্লেম’ শীর্ষক মিউজিক ভিডিওটির সেলিব্রেট করবে ‘হিউম্যান স্পিরিট’কে। উল্লেখ্য, মরুশহরে হোটেলের বাইরে থেকেই সতীর্থ এবি ডি’ভিলিয়ার্সের এই মিউজিক ভিডিওর জন্য গলা মিলিয়েছেন কোহলি-চাহাল-মরিসরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় মিউজিক ভিডিও প্রকাশ করে আরসিবি ব্যাটসম্যান লেখেন, ‘আমরা প্রত্যেকেই প্রত্যেকের থেকে ভিন্ন, কিন্তু অন্য প্রেক্ষিতে আমরা সকলেই ঐক্যবদ্ধ।’ এছাড়া মিউজিক ভিডিও প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মিস্টার ৩৬০ জানিয়েছেন, ‘আমি এবং কারেন জোইড ২০১৯ এই মিউজিক ভিডিও বানানোর জন্য প্রথম সাক্ষাৎ করেছিলাম।’ একইসঙ্গে ডি’ভিলিয়ার্স জানিয়েছেন সে সময় কোভিড সম্বন্ধে তাদের কোনও ধারণাই ছিল না। তাই ক্রিকেটার হয়ে ওঠার পথে জীবনে তাঁকে যে সকল চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে, গানের বিষয়বস্তু হিসেবে প্রাথমিকভাবে সেগুলোকেই বেছে নিয়েছিলেন তিনি।

প্রোটিয়া তারকা ক্রিকেটার জানিয়েছেন, ‘আমরা এই মিউজিক ভিডিওর মধ্যে দিয়ে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে চাই। সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের প্রতি একটা বার্তা বহন করতে চাই। গানটি যখন আমি লিখছিলাম তখন বিষয়বস্তু হিসেবে আমার মাথায় ছিল ক্রিকেটার হয়ে ওঠার পথে আমায় যে সব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে সেগুলো। সে সময় কোভিড নিয়ে আমাদের কোনও ধারণাই ছিল না। কিন্তু তা সত্ত্বেও আমাদের মনে হয়েছিল পৃথিবীর মানুষকে কিছু ইতিবাচিক বার্তা দেওয়ার রয়েছে।’

আপাতত সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে তাঁর ফ্র্যাঞ্চাইজি দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে অ্যাসাইনমেন্টে রয়েছেন ডি’ভিলিয়ার্স। লিগের প্লে-অফে ওঠার দৌড়ে সামনের সারিতেই রয়েছে তাঁর দল। শুধু তাই নয়, চলতি টুর্নামেন্টে দলের চমকপ্রদ পারফরম্যান্সের পিছনে ব্যাট হাতে মেজাজেই রয়েছেন ডি’ভিলিয়ার্স। ইতিমধ্যেই ৪টি অর্ধশতরান এসেছে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।