দুবাই: পছন্দের সঙ্গী বিরাট কোহলি ছন্দে নেই। তাতে কী, আইপিএলে এবি ডি’ভিলিয়ার্সের বিধ্বংসী ফর্ম কিন্তু চলছেই। সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে ৩০ বলে ঝোড়ো ৫১ রানের পর তৃতীয় ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ফের একবার জ্বলে উঠল আব্রাহাম বেঞ্জামিন ডি’ভিলিয়ার্সের ব্যাট। মাত্র ২৪ বলে ৫৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে আরসিবি’কে রানের পাহাড়ে চড়িয়ে দিলেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। সঙ্গে আরও একবার জানান দিলেন কেন ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফর্ম্যাটে তাঁকে অন্যতম ধ্বংসাত্মক ব্যাটসম্যান হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

দলের রানকে দু’শো রানের গন্ডি পার করে দেওয়ার পাশপাশি আইপিএলে এদিন ৪,৫০০ রান সম্পূর্ণ করলেন এবি ডি। টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে এই মাইলস্টোন ছুঁলেন তিনি। একইসঙ্গে সুরেশ রায়না, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান এবং ডেভিড ওয়ার্নারদের সঙ্গে ঢুকে পড়লেন এলিট ক্লাবে। অজি ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নারের পর দ্বিতীয় বিদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে এই মাইলস্টোন ছুঁলেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান।

২০০৮ দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের হয়ে আইপিএল কেরিয়ার শুরু করার পর ২০১১ দল বদলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরে অন্তর্ভুক্তি ঘটে তাঁর। দীর্ঘ ন’টি মরশুমে সাফল্যের সঙ্গে আরসিবি সংসারে কাটালেও ট্রফি খরা কাটাতে ব্যর্থ তিনি। যদিও ব্যক্তিগত একাধিক রেকর্ডের পাশাপাশি বিরাট কোহলির সঙ্গে জুটি বেঁধে আইপিএলে প্রথম দু’টি সর্বোচ্চ রানের পার্টনারশিপ রয়েছে এবি ডি’র নামে।

২০১৬ আরসিবি’র জার্সি গায়ে সবচেয়ে সফল মরশুমে গিয়েছে ডি’ভিলিয়ার্সের জন্য। ওই মরশুমে ব্যাট হাতে ৬৮৭ রান এসেছিল প্রাক্তন প্রোটিয়া অধিনায়কের ব্যাট থেকে। কিন্তু ফাইনাল হেরে সেই মরশুমে অল্পের জন্য ট্রফি হাতছাড়া হয়েছিল আরসিবি’র। সোমবার দুবাইয়ে ৪টি চার এবং ৪টি ছয়ের সাহায্যে ২৪ বলে ঝোড়ো ৫৫ রানের ইনিংস আসে তাঁর ব্যাট থেকে। অধিনায়ক বিরাট কোহলি আরও একবার ব্যর্থ হওয়ার পর দেবদূত পারিক্কলের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৬২ রানের জুটি গড়েন তিনি।

এরপর চতুর্থ উইকেটে শিবম দুবের সঙ্গে ৪৭ রানের জুটিতে দলের রান ২০১-এ পৌঁছে দেন মিস্টার ৩৬০। ডি’ভিলিয়ার্স ছাড়াও ৩৫ বলে ৫২ রান আসে ফিঞ্চের ব্যাট থেকে। ৪০ বলে ৫৪ রান করেন দেবদূত। ১টি চার এবং ৩টি ছয়ে ১০ বলে অপরাজিত ২৭ রানের ক্যামিও আসে শিবম দুবের ব্যাট থেকেও।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।