কেপ টাউন: ৩০ মে থেকে শুরু হতে চলা ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলার কোনও সম্ভাবনা নেই এবি ডি’ভিলিয়ার্সের৷ কিন্তু চার বছর পর ভারেতর মাটিতে অর্থাৎ ২০১৩ বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা উসকে দিলেন প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান৷

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের মাটিতে ১২ দিন পর শুরু ওয়ান ডে বিশ্বকাপের দ্বাদশ সংস্করণ৷ কেনিংটন ওভালে ৩০ মে উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি আয়োজক ইংল্যান্ড ও চোকার্স খ্যাত দক্ষিণ আফ্রিকা৷ গত বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে গুডবাই জানানোয় বিশ্বকাপের দলে নেই এবিডি৷ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে দ্বাদশ আইপিএল খেললেও দ্বাদশ বিশ্বকাপটা টেলিভিশনের পর্দায় দেখবেন প্রাক্তন প্রোটিয়া অধিনায়ক৷

তবে পরের বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা উসকে দিলেন এবিডি৷ প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি ৩৮ বছরে বিশ্বকাপ খেলতে পারলে ৩৯ বছর বয়সে তিনি কেন বিশ্বকাপ খেলতে পারবেন না! চার বছর পর অর্থাৎ ২০২৩ বিশ্বকাপ হবে ভারতের মাটিতে৷ এই বিশ্বকাপে শুধু তিনি নন, ধোনিও খেলতে পারেন বলে মনে করেন এবিডি৷

পরের বিশ্বকাপে তাঁর খেলার কোনও সম্ভাবনা রয়েছে কিনা, এই প্রশ্নের উত্তরে প্রাক্তন প্রোটিয়া অধিনায়ক বলেন, ‘২০২৩-এ আমার কতই-বা বয়স হবে! ৩৯৷ ধোনি খেললে আমিও খেলতে পারি৷ কে বলতে পারে আমি খেলব না!’ ডি’ভিলিয়ার্সের ফিটনেস নিয়ে কোনও প্রশ্ন ওঠার কথা নয়৷ সদ্যসমাপ্ত আইপিএলে তা দেখিয়ে দিয়েছেন এবিডি৷ ব্যাট হাতে ঝড় তোলার পাশাপাশি ফিল্ডিংয়ে এখনও সমান পারদর্শী মিস্টার ৩৬০ ডিগ্রি৷

সম্ভবত ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেবেন ৩৮ ছুঁই ছুঁই ধোনি৷ সুতরাং পরের বিশ্বকাপে প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের খেলা নিয়ে কোনও সম্ভাবনা নেই বললেই চলে৷ ২০১১ ধোনির নেতৃত্বে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে ভারত৷ কপিল দেবের ২৮ বছর পর ধোনির হাত ধরে দ্বিতীয়বার ওয়ান ডে বিশ্বকাপ জেতে ভারত৷ ২০১৫ বিশ্বকাপে ধোনির নেতৃত্বে ভারত সেমিফাইনালে হেরেছিল টিম ইন্ডিয়া৷ এবারের বিশ্বকাপে বিরাট কোহলির নেতৃত্ব ভারতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করবেন মাহি৷