নয়াদিল্লিঃ  ভোটের ফলাফল প্রকাশের আর মাত্র ৪৮ ঘন্টা বাকি। কিন্তু ভোট পরবর্তী সমীক্ষায় ইঙ্গিত, সংখ্যাগরিষ্ঠের চেয়েও বেশি আসন পেয়ে ফের ক্ষমতায় প্রধানমন্ত্রী মোদীই। শুধু গোটা দেশেই নয়, বাংলাতে মমতাকে ধাক্কা দিয়ে ব্যাপক ভালো ফল করতে পারে বিজেপি। বুথ ফেরত সমীক্ষাতে রীতিমত উচ্ছ্বসিত বিজেপি শিবির। যদিও এই এক্সিট পোলকে সম্পূর্ণ গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এমনকি যাতে কোনওভাবে ইভিএমে বিজেপি কারচুপি না করতে পারে সেজন্যে সমস্ত কর্মীদের স্ট্রং রুমগুলির নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একদিকে যখন তৃণমূল নেত্রী ইভিএমে কারচুপির আশঙ্কা করছেন তখন বিস্ফোরক দাবি করলেন আম আদমি পার্টির নেতা রাঘব চাড্ডা।

দক্ষিণ দিল্লি লোকসভা কেন্দ্র থেকে এবার আম আদমি পার্টির হয়ে প্রার্থী হয়েছেন রাঘব। তাঁর আশঙ্কা, রাতেই ইভিএমে কারচুপি করা হতে পারে। আর তাঁর এই মন্তব্যের পিছনে সুনির্দিষ্ট তথ্য আছে বলেও দাবি করেছেন আপ প্রার্থী। আর সেজন্যে কমিশনের কাছে বাড়তি নিরাপত্তা চেয়েছেন রাঘব। এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত জানিয়ে ইতিমধ্যে কমিশনকে চিঠি দিয়েছেন তিনি। সেখানে ২০১৭ সালের পুর নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন তিনি।

চিঠিতে তিনি আরও লিখেছেন, ‘‘পুর নির্বাচনের সময় দক্ষিণ দিল্লিতে স্ট্রং রুমে ঢুকে সিল ভেঙে ইভিএমে কারচুপি করা হয়েছিল। সেই ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না হয়, তা নিশ্চিত করুক নির্বাচন কমিশন।’’

প্রসঙ্গত, ইভিএমে কারচুপির আশঙ্কায় বিরোধীরা। আর এই দাবিতে আজ মোদী বিরোধী ২১টি দল নিজেদের মধ্যে বৈঠকে বসে। দিল্লিতে হয় এই বৈঠক। এরপরেই ২১টি দলের প্রতিনিধি দল ইভিএম কারচুপি রুখতে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হবে। যেখানে বলা হয়েছে, রাতের অন্ধকারই হোক কিংবা যে কোনও সময় ইভিএমে কারচুপি রুখতে বিশেষ ব্যবস্থা যাতে নেওয়া হয় সেই দাবিই করা হবে নির্বাচন কমিশনের কাছে। আর এরই মধ্যে আপ নেতার বিস্ফোরক মন্তব্যে তৈরি হয়েছে নানারকম জল্পনা।