নয়াদিল্লি: রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে বিরোধীদের পছন্দের প্রার্থী মনোজ ঝা’কে সমর্থন করবে আম আদমি পার্টি। দিল্লির শাসকদল আপের সাংসদ সঞ্জয় সিং দলের তরফে তাঁদের এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। উল্টোদিকে রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে এনডিএ সমর্থিত প্রার্থী হরিবংশকে সমর্থনের বার্তা দিয়েছে বিজু জনতা দল।

এনডিএ জোটের রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হয়েছেন জেডিইউ নেতা হরি বংশ। তাঁকে টক্কর দিতে ওই পদে বিরোধী জোটের প্রার্থী আরজেডির মনোজ ঝা। কংগ্রেস নেতৃত্ব রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে বিজেপি জোটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।

‌সে জন্য প্রথমে ডিএমকে নেতা তিরুচিশিবকে প্রার্থী করার প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু ডিএমকে পিছিয়ে যাওয়ায় তখন এনসিপি থেকে প্রার্থী করার কথা বলা হয়, কিন্তু তারাও রাজি না হওয়ায় অবশেষে আরজেডির কাছে প্রস্তাব রাখা হয়।

শেষমেশ বিরোধীদের রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে বাজি আরজেডি নেতা মনোজ ঝা। এই ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচন ঘিরে বিহারে মিনি ভোটের চেহারা নিতে পারে বলেও রাজনৈতিক মহলের ধারণা। ২৪৫ আসনের রাজ্যসভায় এনডিএ জোটের হাতে রয়েছে ১১৬ জন সাংসদ।

অর্থাৎ জেতার জন্য আরও কিছু সাংসদদের সমর্থনের জন্য ইতিমধ্যেই জোর তরফরতা শুরু করেছে এনডিএ। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার, ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ককে অনুরোধ জানিয়ে ফোন করা হয়েছে।

এদিকে, রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে বিরোধীদের প্রার্থী মনোজ ঝা’কে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি। সোমবার সংবাদসংস্থা এএনআইকে দলের তরফে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং।

উল্টোদিকে, রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে এনডিএ সমর্থিত প্রার্থী হরিবংশকে সমর্থন করবে বিজু জনতা দল। সংবাদসংস্থাকে এমনই জানিয়েছেন বিজেডি নেতা প্রসন্ন আচার্য।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।