হায়দরাবাদ: অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানার ৭.৮ কোটি মানুষের আধার তথ্য হস্তগত করার অভিযোগ উঠল তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা আইটি গ্রিডসের বিরুদ্ধে। ইউআইডিএআই-এর অভিযোগের ভিত্তিতে সংস্থার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল সায়বারাবাদ পুলিশ।

দুই রাজ্যের জনসংখ্যা সর্বমোট ৮.৪ কোটি। এই তথ্য টিডিপি’র সেবা মিত্র অ্যাপের উন্নয়নের স্বার্থে ব্যবহার করবে কোম্পানি। এফআইআর সূত্রে জানা গেছে, আধার আইনের আওতায় এই তথ্য রিমুভাল স্টোরেজের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছে, কেন্দ্র ও রাজ্যের ওই তথ্যগুলি সংস্থাটি অসাধু কাজে লাগাতে পারে বলে অনুমান করে ইউআইডিএআই।

ইউআইডিএআইয়ের কাছে যে রকম পরিকাঠামো এবং পরিমাপের আধার তথ্য রয়েছে, তেমন তথ্যই রয়েছে ওই সংস্থার কাছে। সূত্র বলছে, এই মামলাটি এসআইটির কাছে পাঠান হবে। হার্ড ডিস্কের ডেটা অ্যানালিসিসের সময় সংস্থার অফিস থেকে তথ্য উদ্ধার হয়েছে। তেলেঙ্গানা স্টেট ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবরেটরির বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তারা লক্ষ্য করেছেন, ওই সংস্থাটি অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানার ৭৮,২২১,৩৯৭ সংখ্যক আধার তথ্য দখল করে রেখেছে।

টিডিপি বলছে, আধারের মূল উপাদানগুলি তারা ব্যবহার করেন নি। তারা শুধুমাত্র জনগনের সুবিধা প্রদান হেতু এই তথ্য ব্যবহার করে থাকে। এসআইটি এবং ইউআইডিএআই-এর তথ্যের ভিত্তিতে মাধাপুর পুলিশ একটি অভিযোগ দায়ের করেছে শুক্রবার। আধার আইন ২০১৬-এর বিভিন্ন ধারায় এই অভিযোগ নিয়েছে পুলিশ।

” খুব শীঘ্রই তদন্তের রিপোর্ট সামনে আনতে হবে। সংস্থায় অভিযান চালিয়ে ৭ টি হার্ড ডিস্ক পাওয়া গেছে। ভোট বাঞ্ছাল করতে এই সেবামিত্র অ্যাপ অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানার ভোটারদের ভোটার কার্ডের তথ্য এবং আধার কার্ডের তথ্য চুরি করতে পারে বলে ধরা হচ্ছে। ” অভিযোগে বলেছেন, ইউআইডিএআইয়ের ডেপুটি ডিরেক্টর টি ভবানি প্রসাদ। যখন এই তথ্যগুলি টিএসএফএসএল-এ পাঠান হয়, তখন তারা এসআইটিকে একটি প্রাথমিক রিপোর্ট দেয়, এই গেজেটগুলিতে বিপুল পরিমান তথ্য মজুত রয়েছে বলে। “

টিএসএফএসএল বলেছে, ওই হার্ড ডিস্কগুলিতে প্রচুর পরিমাণে আধার তথ্য মজুত ছিল। পরবর্তী তদন্তে জানা গিয়েছে, ৭৮,২২১,৩৯৭ সংখ্যক আধার তথ্য মজুত করে রেখেছে টিডিপির সেবামিত্র অ্যাপ।”