মুম্বই: জন্মানোর পর থেকেই সেলেব্রিটি সে। মানে বোঝার আগেই খ্যাতির আলোয় থাকে তৈমুর আলি খান। সে কখন কী করে, সব কিছুর উপরে নজর রাখেন পাপারাৎজিরা। সম্প্রতি সইফ আলি খান ও করিনা কাপুর খানের এই একরত্তি ছেলের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

সেই ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে গণেশ চতুর্থী উপলক্ষে আনন্দে মেতেছে তৈমুর। খুদে গণেশ পুজো উপলক্ষে গণপতি বাপ্পা মোরিয়া, মঙ্গল মূর্তি মোরিয়া বলে চিৎকার করছে।

করিশমা কাপুর সেই ভিডিও শেয়ার করেছেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে, তৈমুর কিয়ান ও আরমানের সঙ্গে খেলা করছে। ছোট্ট তৈমুরকে সাদা পাঞ্জাবি ও পাজামায় বরবারের মতোই মিষ্টি লাগছে। এছাড়াও গণেশ চতুর্থী উপলক্ষে বহু ছবি ভাইরাল হয়। কোথাও দেখা যাচ্ছে গণেশ মূর্তি সামনে পরিবারের সমস্ত সদস্যরা সারি দিয়ে বসে আছেন। আবার আর একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে বাড়ির সব খুদেরা হাত জোড় করে বসে আছে গণেশ মূর্তির সামনে।

এদিন গণেশ চতুর্থীর অনুষ্ঠানে করণ জোহরের দুই যমজ সন্তান যশ ও রুহিও উপস্থিত ছিল। তাদের সঙ্গেও তৈমুরকে খেলায় মাততে দেখা যায়।

এদিন পুজো উপলক্ষে, করিনা কাপুর একটি পাউডার ব্লু রঙের স্যুট পরেছিলেন। এদিন করিশমা একটি ক্রিম রঙের ফ্লোরাল স্যুট পরেন।

প্রসঙ্গত, লন্ডনে অনেকদিন থেকে গত মাসে সইফ-করিনা মুম্বই ফিরেছেন। তৈমুরও সেখানেই ছিল। আংরেজি মিডিয়াম ও জওয়ানি জানেমন ছবির শ্যুটিং-এর জন্য তাঁরা সেখানে ছিলেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।