তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: হাসপাতালের বেডে বসেই এবার জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষায় বসেছে বাঁকুড়ার সিমলাপালের পল্লীভারতী হাইস্কুলের ছাত্র শুভ চক্রবর্তী। এবার তার স্থানীয় লক্ষীসাগর হাই স্কুল থেকে পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্ত তার আগেই গত ১৩ ফেব্রুয়ারি বাইক দূর্ঘটনায় আহত হয়ে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভরতি হতে হয় তাকে।

ফলে শারিরীক অসুস্থতা সত্ত্বেও অদম্য জেদ আর ইচ্ছা শক্তির জেরে ওই ছাত্র এবার হাসপাতালের সার্জিকেল ওয়ার্ডের বেডে বসেই পরীক্ষা দিচ্ছে। তার আবেদনে সাড়া দিয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে অসুস্থ ওই ছাত্রের হাসপাতালে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য সবরকম ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এদিন এই খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে পরীক্ষার্থী শুভ চক্রবর্তীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে আসেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্ম্মু, পৌরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্তেরা।

আহত ঐ পরীক্ষার্থীর বাবা বিদ্যুৎ চক্রবর্তী বলেন, ছেলে মোটরবাইক দূর্ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভরতি। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে এখানেই পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। ছেলের একটা বছর নষ্ট না হওয়ায় তিনি ভীষণ খুশি বলেই জানিয়েছেন।

মধ্যশিক্ষা পর্ষদের বাঁকুড়া জেলা আহ্বায়ক গৌতম দাস বলেন, আহত পরীক্ষার্থীর অভিভাবকদের আবেদনের ভিত্তিতে তার পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন বাকি পরীক্ষা গুলিও সে এখান থেকেই দেবে বলে তিনি জানিয়েছেন।