স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : এখনও স্বাভাবিকের নিচেই রয়েছে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। সকালের আবহাওয়ার আপডেটে এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বৃহস্পতিবার এক ধাক্কায় কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা নেমেছে সাত ডিগ্রি। আজ বেলায় তা স্বাভাবিক নিয়মে বেড়ে ৩৫ ডিগ্রিতে পৌঁছতে পারে।

শুক্রবার আকাশ থাকবে মেঘলা। এদিন সকালে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৪.৭ ডিগ্রি, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৯০ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৬০ শতাংশ।

বৃহস্পতিবারও সারাদিন মেঘলা ছিল আকাশ। তার সঙ্গে দিয়েছিল ঠান্ডা হাওয়া। যদিও সন্ধ্যার পর থেকে হাওয়া সম্পূর্ণ বন্ধ হয়। হাওয়া অফিসের রেকর্ড জানিয়েছিল ওইদিন কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে পাঁচ ডিগ্রি কম। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল সর্বনিম্ন ৫৩ শতাংশ, সর্বোচ্চ ৮৬ শতাংশ। বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৩.১ ডিগ্রি, যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি কম ছিল। বুধবার দিনভর বিশ্রি গরমের পর প্রায় রাতভর মাঝারি মানের বৃষ্টি হয়। শহরে বৃষ্টি হয় ১১.৮ মিলিমিটার।

বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বনিম্ন ৪৭ শতাংশ, সর্বোচ্চ ৯৩ শতাংশ।

মঙ্গলবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। সোমবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি বেশি। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বনিম্ন ২০ শতাংশ, সর্বোচ্চ ৯৪ শতাংশ।

সোমবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম ছিল। রবিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল সর্বনিম্ন ৫১ শতাংশ, সর্বোচ্চ ৮৫ শতাংশ।

সোমবার থেকে নাগাড়ে তাপমাত্রার বেড়েছিল। গত সপ্তাহে শনিবার ঝড় ঝাপটার জেরে ঠান্ডা আবহাওয়া দ্রুত আবহাওয়া পরিবর্তন হবে বলে জানিয়েছিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। কিন্তু এত দ্রুত তা হবে অর্থাৎ সকালে পূর্বাভাস দেওয়ার পরেই দুপুরেই যে তা প্রকট হয়ে ফলপ্রসূ হবে এমন ভাবে তা ভাবা যায়নি। কারণ কলকাতার তাপমাত্রা সোমবার স্বাভাবিকের নিচে ছিল। সৌজন্যে ১৭ তারিখ সন্ধ্যায় মরসুমের প্রথম কালবৈশাখী। বৃষ্টিহীন ৫২ কিলোমিটার গতির ঝড় ঝাপটা পারদ দুই দিন ধরে স্বাভাবিকের নীচে রাখতে সক্ষম হয়। সোমবার দুপুর বেলা থেকে এর আমূল পরিবর্তন হয়। সকালের ঠান্ডা হাওয়া বেলায় গরম হয়ে ‘লু’এর মতো বইতে থাকে। সঙ্গে আপেক্ষিক আর্দ্রতা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.