৫০ থেকে ৮০ শতাংশ শিশু অটিজম স্পেকট্রাম ডিসঅর্ডারে কারণে ঘুমের সমস্যায় কিংবা রাতের মধ্যে একাধিক বার ঘুম ভেঙে যাওয়ার মতো ঘটনায় ভোগে। আবার এই সমস্যার কারণে অনেক শিশু রাতে খুব দেরি করে ঘুমনো কিংবা হটাৎ রাতে ঘুম থেকে উঠে কান্নাকাটি করতে থাকে। বাচ্চাদের এই রাতে ঘুম না আসা কিংবা হটাৎ করে ঘুম ভেঙে কান্না বাবা-মায়ের কাছে একটা চ্যালেঞ্জ, বিরক্তি, হাইপারঅ্যাক্টিভিটির মতো সমস্যা সৃষ্টি করে থাকে।

আমরা অনেক সময় বাচ্চাদের চুপ করানোর জন্য নানা ভিডিও বা গেম দেখিয়ে থাকি। তবে অনেক সময় হতে পারে ভয়ের বা হিংসাত্মক অনুষ্ঠান বা গেমস দেখে ঘুমোতে সমস্যা হতে পারে বাচ্চাদের। এছাড়াও শোবার সময় মেলোটোনিন হরমোন নিঃসরণে ব্যাঘাত ঘটার ফলে ঘুমের সমস্যা হতে পারে বাচ্চাদের ।

বাচ্চাদের এই ঘুম নিয়ে চিন্তিত অনেক অভিভাবক। আর এই প্রতিবেদনে বেশ কিছু টিপস দেওয়া হল যেখানে খুব সহজে বাচ্চাদের ঘুম পারাতে পারবে বাবা-মায়েরা।

ঘুমের পরিবেশ: ঘুমাতে যাওয়ার ঘরটি অন্ধকার, শান্ত এবং আরামদায়ক হওয়া উচিত বাচ্চাদের জন্য। এএসডি আক্রান্ত শিশুরা শব্দের প্রতি সংবেদনশীল হয়ে থাকে। আর সেই অনুযায়ী বাবা মায়ের পরিবেশটি গ্রহণ করা উচিৎ বাচ্চাদের সঠিক ঘুমের জন্য।

ঘুমাতে যাওয়ার রুটিন: প্রতিদিন ঘুমাতে যাওয়ার রুটিনে স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ ক্রিয়াকলাপগুলি অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ যেমন হালকা সংগীত শোনা বা কিছু পড়া। শুতে যাওয়ার আগে হালকা গরম জলে বাচ্চদের পা ধোয়ালে শিশুরা রিলেক্স হতে পারে। টিভি, কম্পিউটার, ভিডিও গেম ইত্যাদির মতো শোবার সময় কাছাকাছি ইলেকট্রনিক্স ব্যবহার এড়িয়ে চলা উচিৎ বাচ্চার ঘুমানোর সময়ে।

ছুটির দিনের ঘুমানোর রুটিনঃ ঘুমোতে যাবার নিয়ম প্রতিদিন এক রাখা উচিৎ, ছুটি বলে গভীর রাতে ঘুমাতে যাওয়া উচিৎ নয়। এর ফলে পরের দিনে সকালে উঠতে অসুবিধা তৈরি হয় এবং শিশুর ক্ষেত্রে একটা নিয়ম নষ্ট হয়। একটা নিয়ম রোজ মেনে চললে শিশুরা তাতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে।

অনুশীলন: দিনের বেলা অনুশীলন অতিরিক্ত শক্তি তৈরি করতে সাহায্য করে, যার ফলে শিশুকে শান্ত করা যায়। অনুশীলনের সময় কখনও শোবার খুব বেশি কাছাকাছি হওয়া উচিত নয়, কারণ এটি শিশুদের ঘুমিয়ে পড়তে অসুবিধা সৃষ্টি করতে পারে।

বেশ কিছু মেডিকেশন ঘুমের ক্ষেত্রে উদ্বেগ সৃষ্টি করতে পারে, আর তাই এই ক্ষেত্রে চিকিৎসা দরকার রয়েছে।

স্লিপ অ্যাপনিয়া, ঘুমের মধ্যে হাঁটা, ঘুমের ভয়, অস্থির পা সিনড্রোমের মতো ঘুমের ব্যাধিগুলির জন্য বিশেষজ্ঞের সুপারিশের প্রয়োজন এবং ঘুমের ব্যাঘাতের কারণ হিসাবে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে এগুলি মূল্যায়ন করা উচিৎ।

মেলাটোনিনের ব্যবহার: ঘুমের সমস্যার কারণে মেলাটোনিনের মতো ওষুধ ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হয় ,যদি শিশুটি ঘুমের উদ্বেগ বোধ করে। তবে এটি সম্পূর্ণ ভাবে বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে শুরু করা উচিত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.