কলকাতা: চিকিৎসা শাস্ত্রে জটিল অপারেশন৷ ৪৭ বছরের একজন রোগীর বেন্টাল সার্জারি ও কমপ্লিট আর্চ রিপ্লেসমেন্ট করে সাফল্য পেল যশোর রোডের পাশে একটি বেসরকারি হাসপাতাল৷

হাসপাতাল সূত্রে খবর, কিছুদিন আগে মুর্শিদাবাদ থেকে একজন রোগী আসেন৷ কাসেম মালিটো নামে ওই রোগী ক্রনিক ডিসেকসন অফ অ্যাওটা এবং সিভিয়ার অ্যাওটিক রিগারজিটেশন নিয়ে এসেছিল৷ এর পাশাপাশি রোগীর বুকে ব্যথা এবং শ্বাসকষ্ট ছিল৷ এমনকি তিনি রক্তাল্পতায় ভুগছিলেন৷

এরপর রোগীকে সিটি অ্যাঞ্জিও করে জানা যায় তার সমস্ত অ্যাওটা ইনভলভ ছিল এবং অ্যাওটার ডায়ামিটার অনেক বেশি ছিল৷ যা একটি জটিল অপারেশন৷ পেশায় রাজমিস্ত্রি ওই রোগী অনেক হাসপাতাল ঘুরেছেন৷ প্রায় তিন বছর আগে তার এই রোগ শুরু হয় বলে জানিয়েছেন৷

নারায়না মাল্টিস্পেশালিটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই ধরনের রোগী তারা এই প্রথম পান৷ চিকিৎসকদের সঙ্গে আলোচনা করে রোগীর চিকিৎসা শুরু হয়৷ প্রথমে তার রক্তাল্পতার চিকিৎসা করা হয়৷ তারপর ধীরে ধীরে অপারেশনের জন্য প্রস্তুত করা হয়৷

ডাক্তার অরুণাংশু ধোলে জানিয়েছেন,দীর্ঘ ৬ ঘন্টার এই অপারেশনে রোগীর অ্যাওটিক ভাল্ভ অ্যাসেন্ডিং অ্যাওটা ও আর্চ অফ অ্যাওটা রিপ্লেসমেন্ট করা হয়৷ যাকে বেন্টাল সার্জারি ও কমপ্লিট আর্চ রিপ্লেসমেন্ট বলা হয়৷ এটি একটি জটিল অপারেশন এবং এতে অন্যান্য অপারেশনের থেকে ঝুঁকি অনেক বেশী৷

তিনি আরও জানিয়েছেন,এই অপারেশনের ফলে রোগীর মস্তিষ্কজনিত সমস্যা দেখা দিতে পারে, কিডনির সমস্যা দেখা দিতে পারে এবং তার অন্ত্রেরও সমস্যা দেখা দিতে পারে৷

এই ক্ষেত্রে এই ৪৭ বছর বয়স্ক ব্যক্তিকে অপারেশনের পরের দিনেই ভেন্টিলেশন থেকে সরাতে সক্ষম হই এবং অপারেশনের ৯ দিনের মাথায় তাকে বাড়ী পাঠাতে সক্ষম হয়েছি। অপারেশনের পরে সে এখন অনেকটাই সুস্থ এবং উপসর্গহীন৷

সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে মুর্শিদাবাদের ওই রোগী অর্থাৎ কাসেম মালিটো হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।