স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: ওঝার কাছে যেতে না দেওয়ায় স্ত্রী ও পুত্রকে কুপিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হল স্বামী। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুরের তেঁতুলবাড়ি গ্রামে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম ভাজ্যু ওঁরাও(৩৮)।পেশায় দিনমজুর। গত কয়েকদিন ধরে এলাকায় কাজ না পেয়ে অভাবের তাড়নায় মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন। অবসাদ থেকে মুক্তি মিলতে এক ওঝার সঙ্গে যোগাযোগ করেন ওই ব্যক্তি৷ ওঝাও তাঁকে আশ্বাস দেন তাঁর সৌভাগ্য ফিরিয়ে দেওয়ার৷ শনিবার রাতে ওই ওঝার কাছে যাচ্ছিলেন ভাজ্যু ওঁরাও। সেই সময় পুরো ব্যাপারটি জানতে পারেন তাঁর স্ত্রী রানঝো এবং দশ বছরের পুত্র মহাদেব৷

দুজনে ওই ব্যক্তিকে বাধা দিলে বচসা শুরু হয়। সেই সময় রাগের মাথায় ধারাল অস্ত্র দিয়ে রানঝো এবং মহাদেবকে কোপায় ভাজ্যু। ঘটনায় দুজনের হাত কেটে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় দুজনেই অচৈতন অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এরপর ভাজ্যু গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়।

ঘটনা জানতে পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা রানঝো এবং মহাদেবকে প্রথমে হরিশ্চন্দ্রপুর হাসপাতাল নিয়ে যায়। তাদের পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়৷ পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদেহ ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। খোঁজ চালানো হচ্ছে ওই ওঝার।