কলকাতা- শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের গোয়েন্দা চরিত্র শবর দাশগুপ্তের ভূমিকায়ে অভিনয় করে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন শ্বাশ্বত চট্টোপাধ্য়ায়। এবার অন্য এক ছবিতে পুলিশের ভূমিকায় জটিল রহস্যএর সমাধান করবেন তিনি। সৌম্য ঘোষ ও সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য পরিচালিত এই ছবির নাম রহস্যময়।

আদিত্য, এষা, অভিমণ্যু ও তিথির জীবন উঠে আসবে এই ছবিতে। ছবির মূল দুই জুটি আদিত্য-এষা ও অভিমন্যু-তিথি তথ্য-প্রযুক্তি সংস্থায় কর্মরত। একই অ্যাপার্টমেন্টের দুটি মুখোমুখি ফ্ল্যাটে থাকেন দুই জুটি। হঠাৎ একদিন ডিসিপি অনিশ রায়ের কাছে ফোন আসে। তার কাছে ফোন আসে বেডরুমে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে অভিমন্যুর দেহ। আর মেঝেতে অচেতন অবস্থায় পড়েছিল তিথি। কিন্তু ঘর ভিতর থেকে আটকানো। এমনকী জানলাগুলিও ভিতর থেকেই বন্ধ। তাহলে কি তিথিই খুনি! নাকি রয়েছে অন্য কোনও রহস্য। সেই রহস্যই সমাধান করবে অনিশ। এই তদন্তকারী আধিকারিক অনিশের চরিত্রেই দেখা যাবে শ্বাশ্বতকে।

শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় বলছেন, দর্শক আগেও আমায় রহস্য ভেদ করতে দেখেছে। কিন্তু এই চরিত্রকে কী ভাবে শবরের থেকে আলাদা করে তুলতে হয় সেটাই চ্যালেঞ্জ।

এষা, আদিত্য, তিথি ও অভিমন্যুর চরিত্রে দেখা যাবে সায়নী ঘোষ, অমৃতা চট্টোপাধ্যায়, অনিন্দ্য চট্টোপাধ্য়ায় ও আর্যকে। অনিন্দ্য বলছেন, এই ছবির গল্প পড়েই ভালো লেগেছিল। এমন টানটান রহস্য রয়েছে দর্শকদেরও ভালো লাগবে।

অমৃতা বলছেন, ছবিটা নিয়ে খুব এক্সাইটেড। শ্বাশ্বতদার সঙ্গেও এই প্রথম কাজ করার সুযোগ হল। গল্পটাও ভালো লেগেছে। চার বন্ধুর গল্প। আমি এষার চরিত্রে অভিনয় করছি।

ছবির শ্যুটিং খুব শীঘ্রই শুরু হবে। কলকাতা ও কলকাতার আশপাশের কিছু এলাকাতেও শ্যুট হবে।