স্টাফ রিপোর্টার, মহিষাদল: ভুল চিকিৎসায় সদ্যজাত শিশুর মৃত্যু। এই অভিযোগ তুলে, সোমবার সকাল থেকে নার্সিংহোম চত্বরে উত্তেজনা ছড়াল মৃত সদ্যজাতের পরিবারের সদস্যরা। সোমবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে মহিষাদল থানার বিনোদিনী নার্সিংহোমে।

অভিযোগ, গত শনিবার মহিষাদল থানার নাটশাল গ্রামের সামন্ত পাড়ার বাসিন্দা, শিবপ্রসাদ প্রামানিক তাঁর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে প্রসবের জন্য মহিষাদলের বিনোদিনী নার্সিংহোমে এনে ভরতি করেন। রবিবার সকালে শিশুর জন্ম হয়। অভিযোগ, শিশুটি জন্মানোর পর থেকেই নার্সিংহোমে কর্তৃপক্ষ তাঁর ঠিকঠাক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেনি। সময়ে সময়ে ইঞ্জেকশন দেওয়া কথা বলা হলেও তা দেওয়া হয়নি।

রবিবার সন্ধ্যে নাগাদ শিশুটির অবস্থা সংকট জনক জানিয়ে তাকে অন্যত্র রেফার করার কথা বলেন ওই নার্সিংহোমের চিকিৎসকরা। সেই মতো পরিবারের লোকেরা তাকে চিকিৎসার জন্য তমলুকে নিয়ে যায়। শুধু তাই নয়, উপযুক্ত কাগজপত্র না দিয়ে শিশুটিকে নার্সিংহোম থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। জানা গিয়েছে, তমলুক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কিছুক্ষনের মধ্যেই সেখানে ওই সদ্যজাতের মৃত্যু হয়।

এই ঘটনার পরেই ক্ষুদ্ধ পরিবারের লোকেরা সোমবার সকালে নার্সিংহোমে উত্তেজনা ছড়ায়। মৃত শিশুর মামা কৌশিক সামন্ত জানান ,শিশু জন্মের পর শিশুটির সঠিক চিকিৎসা করা হয়নি। শেষ মুহুর্তে আমাদের জানানো হয় শিশুর অবস্থা আশংকাজনক। তড়িঘড়ি করে রেফার করে দেয়। তমলুকে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষনা করে। আমরা স্থানীয় প্রশাসনকে বিষয়টি জানাচ্ছি, ঘটনার তদন্তের জন্য। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। মহিষাদল থানার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অভিযোগ জমা হলে আমরা ঘটনার তদন্ত করে দেখব।